২৫, মে, ২০১৮, শুক্রবার | | ১০ রমজান ১৪৩৯

ডুয়েটে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের মহড়া-উত্তেজনা, হল ছাড়ার নির্দেশ

গাজীপুরের ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (ডুয়েট) আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গত রাতে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সমর্থকরা ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ করে এবং মহড়া দেয়। এ সময় পুলিশ লাঠিপেটা করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয় এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এই পরিপ্রেক্ষিতে নির্দিষ্ট সময়ের আগেই বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল ত্যাগের নির্দেশ দিয়ে আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে কয়েক শিক্ষার্থীকে আটক করেছে বলে শিক্ষার্থীরা দাবি করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মোহাম্মদ আলাউদ্দিন জানান, ছাত্রদের দুটি পক্ষের মাঝে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ক্যাম্পাসে উত্তেজনা বিরাজ করছিল। এর পরিপ্রেক্ষিতে নির্ধারিত সময়ের কয়েকদিন আগেই রমজান ও ঈদ উপলক্ষে আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় ছুটি ঘোষণা করে শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেওয়া হয়।কিন্তু কিছু সংখ্যক শিক্ষার্থী হল ত্যাগ না করে ক্যাম্পাসে উত্তেজনা সৃষ্টি করছে। পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে তাদের হল ত্যাগের জন্য অভিযান চালাচ্ছে বলেও জানান উপাচার্য। জয়দেবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম জানান, পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল খালি করার চেষ্টা করছে। পুলিশ ও শিক্ষার্থীরা জানায়, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি তায়েবুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক বিনয় ব্যানার্জির সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা চলছিল। দুইপক্ষই ক্যাম্পাসে মহড়া দিচ্ছিল। গত সোমবার রাতে ‘চাঁদা দাবিকে’ কেন্ত্র করে দুই পক্ষের মধ্যে বাগবিতন্ডা হয়। একপর্যায়ে তা মারামারিতে রূপ নেয়। এ সময় সাধারণ সম্পাদকের সমর্থক ইইই বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র সাদ্দাম হোসেন, ওয়াফিক হোসেন এবং একই বর্ষের মেকানিক্যাল বিভাগের ছাত্র মিজানুর রহমান মিঠুন আহত হন। আহতদের বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এই ঘটনায় জের ধরে গতকাল মঙ্গলবার ক্যাম্পাসে উত্তেজনা দেখা দেয়।গত রাতে ছাত্রলীগের বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতির সমর্থকরা কাজী নজরুল ইসলাম আবাসিক হলের পুরাতন ভবনে এবং সাধারণ সম্পাদকের সমর্থকরা একই হলের এক্সটেনশন ভবনে অবস্থান নিয়ে মহড়া দিতে থাকে। খবর পেয়ে পুলিশ রাত সাড়ে ১০টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে লাঠিপেটা করে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগ করার জন্য পুলিশ রাতে বিভিন্ন আবাসিক হলে অভিযান চালায়।