কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) ১৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আনন্দ শোভাযাত্রা করেছে বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষক সমিতি। মঙ্গলবার (২৮ মে) সকাল ১১ টায় এই আনন্দ শোভাযাত্রা বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু ভাস্কর্যের সামনে থেকে শুরু হয়ে মূল ফটক হয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ও বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বিভিন্ন রাস্তা প্রদক্ষিণ করে মুক্তমঞ্চে এসে শেষ হয়।

এ ব্যাপারে কুবি শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান বলেন, “বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন একটা আবেগ এবং অনুভূতির জায়গা। ওই আবেগ এবং অনুভূতির জায়গা থেকে বিভিন্ন সংকট এবং সীমাবদ্ধতা থাকা সত্ত্বেও আনন্দ শোভাযাত্রার মাধ্যমে আমরা শিক্ষক সমিতি দিবসটি উদযাপন করেছি। মাননীয় উপাচার্য আগেও মিথ্যা তথ্য দিয়ে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করে রেখেছেন, গতকালও শিক্ষার্থী নেই এমন চিঠি দিয়ে দিবসটি উদযাপনের কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করেননি। বিশ্ববিদ্যালয়, এটি ধারণ করার জায়গা। আমরা শিক্ষকরা এটি ধারণ করি বলে উদযাপন করেছি, উপাচার্য ধারণ করেননি বলে কোনো ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করেননি।”

এছাড়া এই আনন্দ শোভাযাত্রায় আরো উপস্থিত ছিলেন রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সৈয়দুর রহমান, ব্যবস্থাপনা শিক্ষা বিভাগের অধ্যাপক ড. শেখ মকসেদুর রহমান, বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. জি এম মনিরুজ্জামান, পরিসংখ্যান বিভাগের অধ্যাপক ড. দুলাল চন্দ্র নন্দী, অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন, অধ্যাপক ড. শামিমুল সহ আরো অনেকে।

উল্লেখ্য, ২০০৭ সালের ২৮ মে ৩০০ শিক্ষার্থী ও ১৫ জন শিক্ষক দিয়ে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হয়। শুরুতে সাতটি বিভাগ থাকলেও বর্তমানে ১৯টি বিভাগে মোট শিক্ষার্থী রয়েছে ৭ হাজার ১৪১ জন এবং শিক্ষক রয়েছে ২৬৫ জন। বিশ্ববিদ্যালয়টিতে এখন ৩০৮ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী রয়েছে। শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে পাঁচটি আবাসিক হল এবং শিক্ষকদের জন্য আছে দুইটি ডরমিটরি।