আফগানিস্তানে ভয়াবহ বন্যায় নারী-শিশুসহ অন্তত ১৬ জন প্রাণ হারিয়েছেন। দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় বাঘলান ও বাদাখশান প্রদেশের এ দুর্যোগে আংশিক বা পুরোপুরি বিধ্বস্ত হয়েছে পাঁচ শতাধিক ঘরবাড়ি। আফগান সংবাদমাধ্যম টোলো নিউজ এসব তথ্য জানিয়েছে।

স্থানীয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বন্যায় দোশি এবং দান্দ-ই-ঘোরি জেলা, পুল-ই-খুমরি শহর, মধ্য বাদাখশানের মোরচাক গ্রামসহ আরো কয়েকটি জেলা প্লাবিত হয়েছে। বাঘলান পুলিশ কমান্ডের প্রধান আব্দুল গফুর খাদেম বলেছেন, ‘রবিবার রাতে ভয়াবহ বন্যা হয়েছে। আমাদের এলাকায় হতাহতের ঘটনাগুলো ঘটেছে দোশি জেলার লারখাব এলাকায়। সেখানে তিন শিশু, এক নারী ও দুই পুরুষসহ ছয় জন নিহত হয়েছেন। ধ্বংস হয়েছে তিন শতাধিক বাড়ি। বাদাখশানের প্রাকৃতিক দুর্যোগব্যবস্থাপনার প্রধান মোহাম্মদ কামগার জানান, বন্যায় প্রদেশটিতে এক পরিবারের ১০ সদস্য মারা গেছেন এবং একজন আহত হয়েছেন।

এদিকে, সহায়তা পৌঁছানোয় বিলম্বের অভিযোগ করেছে বন্যায় সহায়সম্পত্তি হারানো বেশ কয়েকটি পরিবার। অন্তর্বর্তী সরকার ও ত্রাণ সংস্থাগুলোর কাছ থেকে অবিলম্বে সহায়তার অনুরোধ জানিয়েছে তারা। হিজবুল্লাহ নামে এক ব্যক্তি বলেন, ‘বন্যা আমার পরিবারের ৯ সদস্যকে নিয়ে গেছে। আমরা দুই জনের মরদেহ পেয়েছি। বাকিরা এখনো নিখোঁজ।’

জিয়াউল্লাহ নামে আরেক বন্যার্ত বলেন, ‘আমরাও ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে রয়েছি। আমাদের অনুরোধ, আফগানিস্তানের যে কোনো অংশে যা বরাদ্দ হোক না কেন, আমাদের ভুলে যাবেন না।’ আফগানিস্তানের বিভিন্ন প্রদেশে গত কয়েক সপ্তাহের বিধ্বংসী বন্যায় এ পর্যন্ত ৩০০ জনের বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছে। ধ্বংস হয়েছে কয়েক শ ঘরবাড়ি। ভয়াবহ এই বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে হাজার হাজার একর জমির ফসল।