যে দেশে কোনো ঘটনার প্রতিবাদ করা যাবে না সেই দেশে গণতন্ত্র থাকে কীভাবে, বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির চেয়ারপার্সন কাউন্সিলের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুস সালাম ।

রোববার (২৬ মে ) ২৮ অক্টোবর পরবর্তী গনতান্ত্রিক আন্দোলনের সময় আহত ও কারা নির্যাতিত ২৯ নং ওয়ার্ড বিএনপি নেতা এনামুল হাসান হালিম এর বাসভবনে সাক্ষাৎতে এসে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম উপস্থিত সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

সালাম বলেন, এ সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য পুলিশি ক্ষমতা ব্যবহার করছে। পুলিশি ক্ষমতা ব্যবহার করে বেশিদিন টিকে থাকা যায় না।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ এখন সম্পূর্ণভাবে রাজনৈতিক ঐতিহ্য হারিয়ে ফেলেছে। তারা জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। এখন পুলিশ ও আমলাদের ওপর নির্ভর করে রাষ্ট্রক্ষমতায় টিকে আছে আওয়ামী লীগ।

তিনি বলেন, এই আন্দোলন আজকের নয়, এই আন্দোলন শুরু হয়েছে তখন থেকে, যখন থেকে বেআইনিভাবে দুই দুইবার ভোট ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে জোর করে আওয়ামী লীগ ক্ষমতা দখল করেছে।

আমরা প্রতিবাদও করতে পারিনা। যারাই প্রতিবাদ করে তাদের ওপর পুলিশি হামলা চালানো হয়।

তিনি আরও বলেন, আমাদের প্রতিটি শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে টিয়ারসেল নিক্ষেপ করেছে, রাবার বুলেট ছুড়েছে, অনেক নেতাকর্মীদেরকে বিনা পরোয়ানায় আটক করেছে। যে দেশে কোনো ঘটনার প্রতিবাদ করা যাবে না, সেই দেশে গণতন্ত্র থাকে কীভাবে? এ সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য পুলিশি ক্ষমতা ব্যবহার করছে। পুলিশি ক্ষমতা ব্যবহার করে বেশি দিন টিকে থাকা যায় না।

আওয়ামী লীগ মূলত বিএনপিকে ভয় পায়। বিএনপি যেসব ক্ষেত্রে সফল হয়েছে, তারা সেখানে পারে না। এজন্য তারা ক্ষমতায় বসে নৈরাজ্য করছে, বিএনপিকে হঠাতে চাইছে। কিন্তু এদেশের মানুষের হৃদয় থেকে বিএনপি ও জিয়াউর রহমানকে সরিয়ে ফেলা যাবে না।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক আব্দুস সাত্তার, সদস্য হাজ্বী শহিদুল ইসলাম বাবুলসহ চকবাজার থানা ও ওয়ার্ড বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

বার্তা বাজার/এইচএসএস