কলকাতায় খুন হওয়া ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারের দেহাংশের খোঁজে আবারও অভিযানে নেমেছে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ সিআইডি। সঙ্গে রয়েছে খুনের কাজ ও মরদেহের হাড়, মাংস টুকরো করে ফেলে দেয়ার কাজে মুম্বাই থেকে ভাড়া করে আনা কসাই জিহাদ হাওলাদার।

শনিবার স্থানীয় সময় বেলা সাড়ে ১২টা থেকে দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার পোলেরহাট থানার কৃষ্ণমাটির বাগজোলা খালে তল্লাশি শুরু করে সিআইডি। খালে জাল ফেলে ও নৌকা দিয়ে চলছে এই তল্লাশি অভিযান। কিন্তু এখন পর্যন্ত সন্ধান মেলেনি নিহত এমপির দেহাংশের।
গেলো বৃহস্পতিবার রাত থেকে জিহাদকে সঙ্গে নিয়ে দফায় দফায় চলছে এই অভিযান। সকালে বাগজোলা খালের পানিতে নামানো হয় কলকাতা পুলিশের দুর্যোগ মোকাবিলা বাহিনীর সদস্যদের।

গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানান, খালে তল্লাশি শেষে জিহাদকে নিয়ে তাদের সঞ্জিভা আবাসনের বিইউ সিক্সটি ফোর ফ্ল্যাটে নিয়ে যাওয়ার কথা রয়েছে। এর আগে বৃহস্পতিবার ভোরে বাংলাদেশ সীমান্তের কাছে বনগাঁ থেকে জিহাদকে গ্রেপ্তার করে সিআইডি।