কক্সবাজারে ১ ম ধাপের নির্বাচন ইতোমধ্যে কুতুবদিয়া, মহেশখালী ও কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। ২য় ধাপে চকরিয়া, পেকুয়া ও ঈদগাঁহ উপজেলার নির্বাচন ২১ মে অনুষ্টিত হবে। ৩য় দফায় ২৯ মে অনুষ্ঠিত হবে উখিয়া, টেকনাফ ও রামু উপজেলার নির্বাচন। এই নির্বাচনকে নিয়ে উখিয়ায় দিনক্ষণ শুরু হয়ে গেছে। তিন উপজেলার মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে উখিয়া। তাই সবার দৃষ্টিও এই উপজেলার দিকে।

এরই ধারাবাহিকতায় উখিয়াতে-ও বইতে শুরু করেছে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের হাওয়া। আগামী ২৯ মে অনুষ্ঠিত হবে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। আবার প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতিক ছাড়া নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ায় সকল প্রতিদ্বন্দ্বীকারী প্রার্থীরা হচ্ছে সরকার দলীয় অনুসারী। ইতোমধ্যে তিনটি পদে প্রতিদ্বন্দ্বীকারী ১১জন প্রার্থী দিন-রাত নির্বাচনী মাঠে সরব রয়েছেন।

এদিকে, এবার উপজেলা চেয়ারম্যান পদে জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী পেয়েছেন আনারস প্রতীক, আবুল মনসুর চৌধুরী পেয়েছেন মোটরসাইকেল প্রতীক ও জাফর আলম চৌধুরী পেয়েছেন ঘোড়া প্রতীক।

অন্যদিকে, ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে লড়ছেন ৫ জন প্রার্থী। তার মধ্যে জাহাঙ্গীর আলম পেয়েছেন টিউবওয়েল প্রতীক, মোহাম্মদ রাসেল চৌধুরী পেয়েছেন তালা প্রতীক, কামাল উদ্দিন মিন্টু পেয়েছেন মাইক প্রতীক, গফুর চৌধুরী পেয়েছেন চশমা প্রতীক ও গফুর উল্লাহ পেয়েছেন বই প্রতীক।

ভাইস চেয়ারম্যান (মহিলা) পদে লড়ছেন তিনজন। কামরুন্নেছা বেবী পেয়েছেন কলসী প্রতীক, শাহীন আক্তার পেয়েছেন হাঁস প্রতীক ও সানজিদা আক্তার নূরী পেয়েছেন প্রজাপতি প্রতীক।

এবারের নির্বাচনে ভাইস-চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে যে সকল প্রার্থীরা অংশগ্রহণ করছেন তার মধ্যে অন্যতম আলোচিত প্রার্থী হচ্ছেন স্থানীয় সাংবাদিক নেতা রাসেল চৌধুরী।

সাধারণ কর্মী সমর্থকরা বলছেন, তিনি দখলবাজীতে নাই, ধান্ধাবাজি করেননা। মানবিক, সামাজিক মানুষ হিসেবে সকল শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে মিলেমিশে থাকতে পছন্দ করেন। তিনি ক্লিন ইমেজের একজন মানুষ হিসেবে সকলের মুখে মুখে শুনা যায় তার নাম। তাই নির্বাচনী মাঠে ইয়ং জেনারেশন এবং ক্লিন ইমেজের প্রার্থী হিসেবে তিনি ইতোমধ্যে সাড়া ফেলেছেন।

সাধারণ ভোটাররা বলছেন, একজন শিক্ষিত, কর্মদক্ষ, মানুষের বিপদের আপনজন, সৎ ও সততার উত্তম সমন্বয়, তারুণ্যদীপ্ত সাংবাদিক নেতা রাসেল চৌধুরী। সকল আলোচনা -সমালোচনার উর্ধ্বে থেকে পুরাতন প্রার্থীদের বাদ দিয়ে ইয়ং জেনারেশনের ও ক্লিন ইমেজের প্রার্থী খুঁজেন তবে তার নামই সবার মুখে চলে আসবে। এবার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে গরীব-দুঃখী মানুষের পাশে থাকা দীর্ঘদিনের পরীক্ষিত এ নেতা হিসেবে চমক দিবেন তিনি।

এছাড়া উপজেলার বিভিন্ন হাট, বাজার ও গুরুত্বপূর্ণ স্থান রাসেল চৌধুরীর পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন দিয়ে ছেয়ে গেছে।

এক প্রতিক্রিয়ায় উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ও সাংবাদিক নেতা রাসেল বলেন, বাংলা, বাঙালি ও বাংলাদেশের সকল সোনালী অর্জনের গৌরবান্বিত অংশীদার ছাত্রলীগ ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ। ছাত্র লীগের একজন সাবেক কর্মী ও বর্তমানে আওয়ামীলীগের একজন সক্রীয়কর্মী হয়ে জাতির পিতার আদর্শ মনে-প্রাণে ধারণ করে দেশনেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নে অনুপ্রাণিত হয়ে গঠনমূলক অংশগ্রহনের মাধ্যমে একজন ক্ষুদ্র কর্মী হয়ে কাজ করে যাচ্ছি। আগামী দিনের সুখী, সমৃদ্ধ, ডিজিটাল থেকে স্মার্ট, উন্নত আয়ের সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয় সব সময় বুকে ধারণ করে চলছি।

তিনি বলেন, আমি জনগণের সেবক হয়ে উপজেলাবাসীর পাশে আজীবন থেকে সেবা করে যেতে চাই। একটি প্লাটফরমে দাঁড়িয়ে উপজেলার সুবিধাবঞ্চিত ও পিছিয়ে পড়া মানুষদের এগিয়ে নিতে কাজ করতে চাই। এক কথায় একটি সুস্থ ধারা চালু করে উপজেলার সর্বক্ষেত্রে একটি আমূল পরিবর্তন আনতে চাই।

একজন শিক্ষিত, মার্জিত ও আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী মানুষের দ্বারাই সকল লোভ-লালসাকে দূরে রেখে সমাজের মানুষের জন্য কল্যাণে কাজ করা সম্ভব। মানবতার মা শেখ হাসিনার সকল উপহার, সুবিধা ও উন্নয়নের বার্তাগুলো উপজেলার প্রতিটি মানুষের দ্বারে দ্বারে পৌঁছে দেওয়ার মাধ্যমে উপজেলাকে ডিজিটাল থেকে স্মার্ট উপজেলায় পরিণত করার মাধ্যমে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণের অংশিদার হতে চাই।

আর সেই মিশন ও ভিশনকে সফল করতেই মূলত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস-চেয়ারম্যান পদে অংশগ্রহণ করা। উপজেলার সর্বস্তরের মানুষ আমাকে সাদরে গ্রহণ করেছেন। আমি শতভাগ আশাবাদি আগামী ২৯ মে ভোটাররা আমাকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করে উপজেলাবাসীর গলায় বিজয়ের মালা পড়িয়ে দিবেন।

উল্লেখ্য, রাসেল চৌধুরী হলদিয়া পালং ইউনিয়নের রুমখাঁ চৌধুরীপাড়া এলাকার মৃত ফরিদ আহমদ চৌধুরীর ছেলে। সততা ও ন্যায়,নিষ্ঠার সাথে কক্সবাজার রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি, দৈনিক মানবজমিন’র কক্সবাজারস্থ স্টাফ রিপোর্টার ও আঞ্চলিক পত্রিকা দৈনিক পূর্বদেশ’র কক্সবাজার প্রতিনিধি, উখিয়া প্রেস ক্লাবের আজীবন (দাতা) সদস্য এবং কক্সবাজার জার্নাল ডটকম এর উপদেষ্টা সম্পাদক হিসেবে কর্মরত আছেন। রাজনৈতিক জীবনে বর্তমানে উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক পদে রয়েছেন তিনি।

সাংবাদিকতার পাশাপাশি তিনি হাসপাতাল পরিচালনা, ব্যবসা এবং ঠিকাদারী কাজের সাথে সম্পৃক্ত রয়েছেন।

বার্তা বাজার/এইচএসএস