কক্সবাজারের উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাইরে এসে সেমিনার ও প্রশিক্ষণ চলাকালে ৩২ জন রোহিঙ্গাকে আটক করেছে। এদের মধ্যে ২৮জন পুরুষ ও ৪ জন নারী রয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছেন।

আটককৃত রোহিঙ্গাদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে উখিয়া থানার ওসি শামীম হোসেন জানিয়েছেন।

এসময় তাদের কাছ থেকে ২টি ল্যাপটপ, ১ টি প্রজেক্টর, ৩২ টি মোবাইল ও সংঠনের বিভিন্ন ডকুমেন্টস জব্দ করা করা হয়।

শুক্রবার (১৭ মে) সকাল দশটার দিকে উখিয়ার রাজাপালং ইউনিয়নের আদালত পাড়া সংলগ্ন একটি বহুতল ভবনে গ্লোবাল ট্রেইনিং সেন্টারে এ অভিযান চালানো হয়।

সূত্রে জানা গেছে, আরআরআরসি’র অনুমতি ব্যতীত ক্যাম্পের বাইরে এসে রোহিঙ্গা যুবক-যুবতীদের নিয়ে সেমিনার ও প্রশিক্ষণের আয়োজন করে গ্লোবাল ট্রেইনিং সেন্টার নামে ওই প্রতিষ্ঠান।

এশিয়া প্যাসিফিক অব রিফিউজি ও আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস এন্ড হিউম্যান রাইটস’ এর সহযোগিতায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এ ব্যাপারে জানতে গ্লোবাল ট্রেইনিং সেন্টারের চেয়ারম্যান শাহ নেওয়াজ চৌধুরীর মুঠোফোনে একাধিক বার চেষ্টা করেও সংযোগ না পাওয়ায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

আন্তর্জাতিক সংস্থা ও বিভিন্ন দেশে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের সাথে যোগসাজশ রক্ষা করে ক্যাম্পের অভ্যন্তরে নিয়োজিত বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কার্যক্রম এবং তথ্য পাচারে এসব প্রোগ্রামের আয়োজন করতে পারে এমনটি মনে করেন সুশীল সমাজের প্রতিনিধি রফিকুল ইসলাম।

এ ব্যাপারে উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ শামীম হোসেন বলেন, গোয়েন্দা সংস্থার তথ্য ভিত্তিতে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। আটককৃত রোহিঙ্গাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

বার্তা বাজার/এইচএসএস