কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) নেত্রকোনা স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের ২০২৪ সালের কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন করা হয়েছে। এতে সভাপতি হয়েছেন লোকপ্রশাসন বিভাগের ১৪তম ব্যাচের শেখ মোঃ মাহবুব হোসেন এবং সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন নৃবিজ্ঞান বিভাগের ১৪ তম আবর্তনের রাকেশ দাস। বুধবার (২০শে মার্চ) সংগঠনটির এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এই তথ্য জানানো হয়।

নতুন কমিটিতে সহ-সভাপতি হিসেবে আছেন ১৪ তম ব্যাচের ইমন আকন্দ, সোহাগ আহম্মেদ, ফারজানা রূপা, সজিব চন্দ্র দাস, পারভিন খাতুন, শাহীন আলম খান হৃদয়, এইচ এম পিয়াস, তামিম মিয়া, তানভীর আহম্মেদ এবং ফাহিম মোরশেদ।

যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্বে আছেন ১৫ তম ব্যাচের সাদির আহম্মেদ, সজিব সরকার প্রিয়, হীরক হাসান হীরা, আরিয়ান অঞ্জন, তাসনিম হক অনন্যা, রাফাত মিয়া, সজীব জয়, তানিম ফকির, খাদিজা আক্তার, তাজিন মীম, সুমাইয়া শারমিন, হারিস উদ্দিন, আদ্রিয়ান তানজুম সুমা, আবু ইউসুফ, গৌতম সূত্রধর, তাহরিমা খানম মুক্তি, রিতু, ওয়ালিউল্লাহ।

সাংগঠনিক সম্পাদক পদে আছেন নাইম খান, রকি উল হাসান, ইসমাইল কাজী, আল মোজাহিদ ফাহিম, নাফিস মাহমুদ খান, জাকিয়া সুলতানা, মোফাজ্জ্বল।

এছাড়া দপ্তর সম্পাদক পদে আছেন মোঃ হুমায়ুন কবির, প্রচার সম্পাদক প্রিয়াংকা পিংকি, অর্থ সম্পাদক ওয়াহিদুজ্জামান খান দীপ্ত, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক নীরব আহমেদ হৃদয়, ছাত্রী বিষয়ক সম্পাদক মোহসিনা আনজুম নোভা, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মোঃ হোসাইন, ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আবু সুফিয়ান জাকি, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক চৈতি পাল, আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক হানিফুর রহমান ইমন, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক তামান্না ইসলাম।

এ বিষয়ে নব্য সাধারণ সম্পাদক রাকেশ দাস বলেন, “বিশ্বজিৎ দাদা ও ওয়াসিম ভাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি ২০২৪ সালের নতুন কমিটির অনুমোদন দিয়ে আমাদের কাজ করার সুযোগ করে দেওয়ার জন্য। যেহেতু এটি একটি ছাত্র কল্যাণ এসোসিয়েশন তাই আমাদের লক্ষ্য থাকবে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত নেত্রকোনার ছাত্রছাত্রীদের সংগঠনে যুক্ত করা, তাদের বিপদাপদে পাশে দাঁড়ানো ও তাদের কল্যাণে কাজ করা। আমরা আমাদের সর্বোচ্চ দিয়ে এই এসোসিয়েশনকে এগিয়ে নিয়ে যাবো।”

সভাপতি মাহবুব হোসেন বলেন, “নৈসর্গিক সৌন্দর্যে বেষ্টিত নেত্রকোণা জেলার আঞ্চলিক সংগঠনের যে গুরুদায়িত্ব আমার উপর অর্পণ করা হয়েছে তা দায়িত্বের সাথে সর্বাত্মক পালন করার চেষ্টা করবো। আমি চেষ্টা করবো সবার বিপদে আপদে পাশে থেকে কাজ করতে।”

এছাড়া তিনি আরও বলেন, “আঞ্চলিক সংগঠনে আসলে পদ পদবি কোনো বিষয় না, এখানে প্রত্যেকটা সদস্যরেই সমান অধিকার রয়েছে। আমার উপর শুধুমাত্র একটা দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। মূলত সকল কার্যক্রম সবাইকে মিলেমিশেই করতে হবে। আমি সংগঠনের সবার উদ্দেশ্যে বলবো, আসুন সবাই মিলে সংগঠনের কার্যক্রম বৃদ্ধি, সংগঠনের ভাবমূর্তি উজ্জল করতে কাঁধে কাধ মিলিয়ে কাজ করি।”