হিরোইনরা সাধারণত নিজের বয়স লুকানোর চেষ্টা করেন। সঠিক বয়সটি জেনে ফেললে ভক্তদের কৌতূহল মিটে যাবে, সেই ধারণা থেকেই সত্যিটা আড়াল করার চেষ্টা করেন তারা।

কলকাতার তুমুল জনপ্রিয় অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখার্জির কথায় মিলল যেই ধারণারই বহিঃপ্রকাশ। সম্প্রতি ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে অংশ নিতে বাংলাদেশে আসেন তিনি। বুধবার (২৪ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় রাজধানীর শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মিলনায়তনে ছিল সিনেমার প্রদর্শনী। যেখানে হাজির ছিলেন স্বস্তিকা।

সেখানেই সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে এই নায়িকা বলেন, ‘আমার ৪৩ বছর বয়স হয়েছে, এমনিতেই বয়স বাড়লে একটু ভয় লাগে। মন খারাপ লাগে এই ভেবে যে, মনে হয় মানুষের ভালোবাসা বুঝি এই একটু কমে যাচ্ছে। কিন্তু বাংলাদেশে এসে সেই ধারণাটা আমার মন থেকে মুছে গেছে।’

দেশের দর্শকদের প্রতি ভালোবাসা জানিয়ে এসময় স্বস্তিকা আরও বলেন, ‘সারা বছর ধরে সোশাল মিডিয়াতে আপনারা যে ভালোবাসা দেন, এটা আমার জন্য বিশাল প্রাপ্তি। ঢাকায় এসে যেখানেই যাচ্ছি, এতো ভালোবাসা পাচ্ছি, এতো উন্মাদনা দেখছি।’

তিনি জানান, ফেসবুকে ঢাকার দর্শকদের অনেকেই বলেছিলেন, ‘বিজয়ার পরে’ ছবিটি প্রদর্শনীর সময় যেন বাংলাদেশি শাড়ি পরে আসি। দেখুন, আমি বাংলাদেশে শাড়ি পরেই আসলাম। আপনাদের সবাইকে ভালোবাসা।

সিনেমার পরিচালক অভিজিৎ শ্রী দাস জানান, ‘ছবিটির গল্প আপনার আমার জীবনের গল্প, সেই গল্প সুন্দর ও সহজ করে পর্দায় তুলে ধরার চেষ্টা করেছি, আশা করি আপনাদের ভাল লাগবে।’

সিনেমায় মৃণায়ী চরিত্রে অভিনয় করেছেন স্বস্তিকা। স্বস্তিকা ছাড়া এই ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন মমতা শংকর এবং দীপঙ্কর। সিনেমায় স্বস্তিকার বাবা-মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন তারা।

বার্তা বাজার/জে আই