ভারতের অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ ভেঙ্গে রামমন্দির নির্মাণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর অধ্যাপক মুজিবুর রহমান। মঙ্গলবার বিকালে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ নিন্দা জানান তিনি।

বিবৃতিতে মুজিবুর রহমান বলেন, ভারতের উত্তর প্রদেশের অযোধ্যায় অবস্থিত পনেরো শতকের ঐতিহাসিক স্থাপনা বাবরি মসজিদ ভেঙ্গে রামমন্দির স্থাপন করা হয়েছে। ১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর প্রথমে বাবরি মসজিদ পূর্বপরিকল্পিতভাবে গুঁড়িয়ে দেয়া হয়। মসজিদ ধ্বংসের প্রায় ১০ বছর পর ২০০২ সালে এলাহাবাদ হাইকোর্ট আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়াকে অযোধ্যার বিধ্বস্ত বাবরি মসজিদের জমিতে খনন কাজ চালানোর নির্দেশ দেয়। সেই নির্দেশ অনুযায়ী খোঁড়াখুঁড়ি শুরু করে প্রত্নতাত্ত্বিকদের একটি দল। ২০০৩ সালের আগস্টে ৫৭৪ পৃষ্ঠার একটি রিপোর্ট কোর্টে জমা দেয় এএসআই।

তিনি বলেন, রিপোর্টে সংস্থাটি দাবি করে বিধ্বস্ত বাবরি মসজিদের নিচে মাটি খুঁড়ে তারা একটি বিশালাকার কাঠামো খুঁজে পেয়েছে। তবে এ কাঠামো যে রাম মন্দিরের, এর স্বপক্ষে তারা তাদের রিপোর্টে কোনো প্রমাণ হাজির করতে পারেননি। তারপরেও নরেন্দ্র মোদী সরকার গত ২২ জানুয়ারি দুপুরে বাবরি মসজিদের স্থানে রামমন্দির উদ্বোধন করে।

ভারতসহ বিশ্বের কোটি কোটি ধর্মপ্রাণ মানুষ তাদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত পেয়েছে। আমরা বাংলাদেশের জনগণের পক্ষ থেকে নরেন্দ্র মোদি সরকারের এই রামমন্দির নির্মাণের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সেই সঙ্গে ধর্মীয় অধিকারের ওপর হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সোচ্চার হওয়ার জন্য আমরা বিশ্বের সকল গণতান্ত্রিক শক্তি ও মুসলিম উম্মাহর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

বার্তা বাজার/জে আই