সিলেবাস পরিবর্তনে সরকারকে বাধ্য করা হবে বলে মন্তব্য করেছেন চরমোনাই পির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করীম। সিলেট সরকারি আলিয়া মাদ্রাসার মাঠে আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হলো চরমোনাইয়ের তিন দিনব্যাপী ওয়াজ মাহফিল। রোববার বাদ ফজর আখেরি মোনাজাত পরিচালনার আগে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মোনাজাতে দেশ, মানবতা, ইসলাম ও দেশের মানুষের শান্তি ও কল্যাণের জন্য দোয়া করা হয়। বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠা এবং ইসলামবিরোধী, মানবতাবিরোধী অপশক্তির হেদায়াত ও মুমিন মুসলমানদের ঐক্যের আহ্বানের দোয়া করা হয়। এ সময় পুরো মাঠ আমিন আমিন রবে মুখরিত হয়।

রেজাউল করীম বলেন, বাংলাদেশ আজ চরম ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। দেশে স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে চাইলে সর্বস্তরে ইসলামকে বিজয়ী করতে হবে। অবৈজ্ঞানিক ও অযৌক্তিক বিবর্তনবাদসহ অসঙ্গতিতে ভরা পাঠ্য সিলেবাসের মাধ্যমে দেশের আগামী প্রজন্মকে নাস্তিক বানানোর ষড়যন্ত্র চলছে। সব ইসলামী দলগুলো ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে পাঠ্য সিলেবাস পরিবর্তনে সরকারকে বাধ্য করা হবে।

তিনি সবাইকে ইসলামের পথে আসার জন্য আহ্বান জানান।

চরমোনাই আরও বলেন, ‘যারা আল্লাহ ও তার রাসুলের আদর্শ ছাড়া অন্য আদর্শ গ্রহণ করে কিংবা অন্য আদর্শের দিকে লোকদের আহ্বান করে, নিশ্চয়ই তারা পথভ্রষ্ট।’

ওয়াজ মাহফিলে বিশেষ অতিথির বয়ান পেশ করেন মাওলানা অধ্যক্ষ হাফিজ ইউনুস আহমদ, মাওলানা ড. আ ফ ম খালিদ হোসাইন, মাওলানা মোস্তাফা কামাল, মাওলানা রেজাউল করিম, মাওলানা মনির হোসাইন, মাওলানা মুফতি ফখর উদ্দিন আহমদ।

বার্তাবাজার/এম আই