ঢাকায় ক্যাসিনো কারবারের মূলহোতাদের একজন মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের বহিষ্কার হওয়া সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট ওরফে ক্যাসিনো সম্রাটকে স্থায়ী জামিন দেওয়া হয়েছে।

২২২ কোটি টাকার মানি লন্ডারিং মামলায় সোমবার তাকে স্থায়ী জামিন দিয়েছেন বিশেষ জজ আদালত-৬ এর বিচারক মঞ্জুরুল ইমাম। মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানি স্থগিত রাখার আবেদনও মঞ্জুর করেছেন বিচারক।

এদিন সম্রাটের আইনজীবী আফরোজা শাহানাজ পারভীন হীরা স্থায়ী জামিন ও অভিযোগ গঠনের শুনানি স্থগিত চেয়ে পৃথক দুটি আবেদন দাখিল করেন। পরে বিচারক স্থায়ী জামিন দিয়ে সম্রাটের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানির জন্য ৫ মার্চ দিন ধার্য করেন। রাজধানীতে অবৈধ ক্যাসিনো ব্যবসার ‘মূল হোতা’ সম্রাট আজকের শুনানির সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

গত ২২ আগস্ট একই আদালত সম্রাটের শারীরিক অবস্থা বিবেচনায় নিয়ে তাকে অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেন। আদেশে উল্লেখ ছিল, সম্রাটকে তার জামিনের বন্ড জমা দেওয়ার সময় তার পাসপোর্ট আদালতে জমা দিতে হবে। জামিনের আদেশে কারাগার থেকে বেরিয়ে আসেন সম্রাট। এরপর থেকে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসা নিচ্ছিলেন।

২০২০ সালের ২৬ নভেম্বর, দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ঢাকা মহানগর জ্যেষ্ঠ দায়রা জজ আদালতে চার্জশিট দাখিল করে জানায়, তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়েছে।

২০১৯ সালের ১২ নভেম্বর সম্রাটের বিরুদ্ধে ঢাকার সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১ এ মামলাটি করে দুদক। র‌্যাবের ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে ২০১৯ সালের ৬ অক্টোবর কুমিল্লা সীমান্ত থেকে সম্রাট ও তার সহযোগী এনামুল হক আরমানকে আটক করা হয়। গ্রেফতারের পর ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটকে যুবলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়।

বার্তাবাজার/এম আই