দেশের মানুষ নির্বাচনকে চরমভাবে প্রত্যাখান করেছে বলে মন্তব্য করেছে এবি পার্টি। রোববার রাজধানীর বিজয়নগরস্থ দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আমার বাংলাদেশ পার্টির উদ্যোগে এক সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন দলটির সদস্য সচিব মজিবুর রহমান মঞ্জু।

‘ফেলানী দিবসে তামাশার নির্বাচন’ শীর্ষক এক নির্বাচনোত্তর সংবাদ সম্মেলনে মজিবুর রহমান মঞ্জু বলেন, আমরা একটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে দেখলাম, নির্বাচনী কেন্দ্রগুলোর বাইরে আওয়ামী লীগের ক্যাডাররা লাইন ধরে আছে। কিন্তু তারা কেউ ভোট দিতে ঢুকছে না। হাজার হাজার ভোটকেন্দ্র দেখা গেলো ভোটার শুন্য। বহু নির্বাচন কেন্দ্রে ভোটারের বদলে ছাগল, কুকুর, ভেড়া আর বানরের পাল দেখা গেছে। গোটা দেশের মানুষ এই তামাশার নির্বাচনকে এত চরমভাবে প্রত্যাখান করেছে, যা আমাদের ধারণা বা প্রত্যাশারও বাইরে ছিল।

তিনি বলেন, এই অবৈধ ফ্যাসিবাদী সরকার প্রতিবেশী রাষ্ট্রের একতরফা পররাষ্ট্রনীতির সহোযোগিতায় যেভাবে বাংলাদেশের গণতান্ত্রকে হত্যা করলো তা আমাদের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বকে হুমকির মুখে ফেলেছে। আমরা ভারতের গণতন্ত্রকামী মানুষকে বলতে চাই, আপনারা আপনাদের সরকারকে বলুন তারা যেন গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের পক্ষে থাকে। স্বৈরতন্ত্রকে তারা যেন সমর্থন না দেয়। আমরা মনে করি, তামাশার এই একতরফা নির্বাচনের মাধ্যমে দেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব ও গণতন্ত্রকে হত্যা করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন এবি পার্টির যুগ্ম আহ্বায়ক প্রফেসর ডা. মেজর (অব.) আব্দুল ওহাব মিনার, সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম ও যুগ্ম সদস্য সচিব ব্যারিস্টার আসাদুজ্জামান ফুয়াদ।

বার্তাবাজার/এম আই