পাবনা শহরে ছাত্রদলের প্রতিবাদ মিছিলে লাঠিচার্জ করে ছত্রভঙ্গ করেছে পুলিশ। এতে অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন। এসময় মিছিল থেকে বেশ কয়েকজন নেতাকর্মীকে আটক করে পুলিশ।

সোমবার (১ জানুয়ারি) বেলা ১২টার দিকে পাবনা শহরের দই বাজার মোড়ে এঘটনা ঘটে।

আহতদের মধ্যে রয়েছেন পাবনা জেলা ছাত্রলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক তসলিম হাসান খান সুইট, পাবনা সদর পৌর ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ান হোসেন হৃদয়, সেতু ফকির, হাবিবুল হাসান রনি। বাকিদের তাৎক্ষনিক নাম জানা যায়নি। আটককৃতদের মধ্যে জেলা ছাত্রদলের সাবেক সহ-ক্রীড়া সম্পাদক আব্দুল্লাহিল কাফি, পৌর ছাত্রদল নেতা শিমুল, মালঞ্চি ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা মো. মাহিন, গয়েশপুর ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা মো. নাসিম। বাকিদের নাম জানা যায়নি।

পুলিশ, নেতাকর্মী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুপুর ১২টার দিকে দেশজুড়ে ছাত্রদল নেতাকর্মীদের গণগ্রেফতার, হামলা, গুম, খুন শারীরিক নির্যাতনের মাধ্যমে আত্মীয়-স্বজনদের গ্রেফতার ও নির্যাতনের প্রতিবাদে একটি প্রতিবাদ মিছিল বের করা হয়। পাবনা জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদুন্নবী স্বপন ও পাবনা জেলা ছাত্রলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক তসলিম হাসান খান সুইটের নেতৃত্বে মিছিলটি শহরের ট্রাফিক মোড় থেকে বের করে শহরের প্রধান সড়ক আব্দুল হামিদ রোড হয়ে ইন্দিরা মোড় দিয়ে দই বাজার মোড়ে পৌঁছায়। এসময় দই বাজার মোড়ে পৌছা মাত্রই লাঠিচার্জ করে পুলিশ। এসময় নেতাকর্মীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। এতে বেশ কয়েকজন আহত হোন। এসময় বেশ কয়েকজন নেতাকর্মীকে আটক করে পুলিশ।

এ বিষয়ে পাবনা জেলা ছাত্রলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক তসলিম হাসান খান সুইট বলেন, ছাত্রদলের ৪৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে দেশজুড়ে ছাত্রদল নেতাকর্মীদের গণগ্রেফতার, হামলা, গুম, খুন শারীরিক নির্যাতনের মাধ্যমে আত্মীয়-স্বজনদের গ্রেফতার ও নির্যাতনের প্রতিবাদে একটি প্রতিবাদ মিছিল বের করি। আমাদের মিছিলটি ছিল সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণ। কিন্তু পুলিশ পেছন থেকে নারকীয়ভাবে আমাদের মিছিলে হামলা চালায়। এতে আমিসহ আমাদের অন্তত ১০-১৫ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। আটক করা হয়েছে অন্তত ১০ জনকে।

এ বিষয়ে পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রওশন আলী বলেন, ‘তাদের (ছাত্রদল) একটি দই বাজার মোড়ে বাধা দেয়া হয়। এসময় তাদের ধাওয়া দিলে দৌড়ে পালাতে গিয়ে কয়েকজন পড়ে যান। সেখান থেকে কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে। তাদের যাছাই-বাছাই চলছে। প্রকৃত সংখ্যা পড়ে জানানো হবে।’

বার্তাবাজার/এম আই