আগামী শনিবার একতরফা নির্বাচনের প্রতিবাদে ইসিকে লাল কার্ড দেখাবে গণতন্ত্র মঞ্চ। এদিন সকাল সাড়ে ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ‘ভোট ডাকাতির ৫ বছর ও একতরফা ডামি নির্বাচনের প্রতিবাদে’ সমাবেশ ও গণমিছিল করবে মঞ্চ। সেখান থেকে নির্বাচন কমিশনকে লাল কার্ড প্রদর্শন করবে তারা।

বৃহস্পতিবার একতরফা ভোট বর্জনের আহ্বানে কাওরানবাজারের পেট্রো বাংলার সামনে গণতন্ত্র মঞ্চের গণসংযোগপূর্ব সমাবেশ এই কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। সমাবেশে শেষে গণতন্ত্র মঞ্চের নেতাকর্মী কাঁটাবন মোড় পর্যন্ত মিছিল, গণসংযোগ ও লিফলেট বিতরণ করেন।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, সারাদেশ তুষের আগুনে পুড়ছে। চারদিকে বারুদের স্ফুলিঙ্গ যে কোন সময় ফেটে পড়বে। আমাদেরকে পুলিশ বাঁধা দিয়েছে, হামলা করেছে। পুলিশ আমাদের নেতাদের মাটিতে ফেলে দিয়েছে। কিন্তু আমরা আবার উঠে দাঁড়িয়েছি। সবার জন্য আওয়ামী লীগ একাই ইশতেহার দিয়েছে। সব দলের নেতৃত্ব নিজে নিয়েছে।

রাজনৈতিক দল উনার পছন্দ না। উনার একটা দল থাকবে বাকিরা হবে সহযোগী সংগঠন। সবাই উনার থেকে ভিক্ষার সিট নিবে। আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা পুরো রাষ্ট্রকে তার পারিবারিক বিষয়ে পরিণত করেছে। আওয়ামী লীগের এই দম্ভ টিকবে না।

তারা বলেন, দেশের মানুষের অধিকাংশ ও প্রবল মতামত তথা বিরোধী সকল মতামতকে উপেক্ষা করে সরকার একতরফা নির্বাচনের প্রায় দাঁড়প্রান্তে, এখন প্রহসনের ক্ষণটা কেবল মঞ্চস্থ করা বাকি। যে নির্বাচনটাকে জনগণ ইতিমধ্যে প্রত্যাখ্যান করেছে, সেটা নিয়ে নানান ষড়যন্ত্র করছে সরকার। দেশ নিয়ে এসব খেলা জনগণকে রুখে দিতে হবে। দেশে ভাগ বাটোয়ারার এই একতরফা নির্বাচন দেশকে ভয়াবহ বিপদে নিয়ে যাবে।

গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী ও গণতন্ত্র মঞ্চের বর্তমান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকির সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না, বাংলাদেশ বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের সাধারণ সম্পাদক শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, ভাসানী অনুসারী পরিষদের সদস্য সচিব হাবিবুর রহমান রিজু ও রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য প্রীতম দাশ।

বার্তাবাজার/এম আই