সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ মুক্তিযোদ্ধা নন, কাগজ বানিয়ে নিজে মুক্তিযোদ্ধা সেজেছেন। এমন তথ্য ফাঁস করলেন তার আপন ছোট ভাই লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এবং জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মাহবুবুজ্জামান আহমেদ।

রবিবার (২৪ ডিসেম্বর) রাতে আদিতমারী উপজেলার কমলাবাড়ী এলাকায় আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী সিরাজুল হকের এক নির্বাচনী জনসভায় মন্ত্রীর ভাই এ কথা বলেন।

মাহবুবুজ্জামান আহমেদ মন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বক্তব্যে বলেন, ‘আপনি লেখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা। কোনোদিন আপনি বীর মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন? যুদ্ধের সময় আমি ক্লাস ফোরে পড়ি।

বীর মুক্তিযোদ্ধা ছিলো আমার বাবা আর এক ভাই অধ্যক্ষ রশিদুজ্জামান। আপনি (মন্ত্রী) তো ইন্ডিয়ায় বসে পাটের ব্যবসা করেছেন। ১৯৯৬ সালে যখন নমিনেশন পেলেন তখন পোস্টারে লেখে দিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা। তখন বিব্রত হয়ে মানিক কমান্ডার ডেকে বলেছিলেন তুই এটা দিসিস কেন? তখন তিনি (মন্ত্রী) বলেছেন, আমি সার্টিফিকেট বানায় নিছি, আমার কাছে কাগজ আছে।’

জনসভায় লালমনিরহাট-২ আসনের আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সিরাজুল হক, আদিতমারী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফারুক ইমরুল কায়েস, কমলাবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদ ওমর চিশতিসহ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে, শনিবার (২৩ ডিসেম্বর) আরেক নির্বাচনী জনসভায় নির্বাচনী প্রচারণায় এক বীর মুক্তিযোদ্ধার ঘাড় মটকে দেয়ার হুমকির অভিযোগ ওঠে লালমনিরহাট-২ আসন নৌকার প্রার্থী সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদের বিরুদ্ধে। স্বতন্ত্র প্রার্থী সিরাজুল হকের নির্বাচনী কর্মী বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মর্তুজা হানিফকে এ হুমকি দেন তিনি। মন্ত্রীর বক্তব্যটি মুহূর্তের মধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

বার্তা বাজার/জে আই