বর্তমান সরকার মুক্তিযুদ্ধের চেতনার নামে ব্যবসা ও সাংবিধানিক সকল প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করেছে বলে অভিযোগ করেছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির ও চরমোনাই পির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম।

তিনি বলেছেন, যে স্বপ্ন ধারণ করে স্বাধীনচেতা মানুষ নিজেদের জীবন বিলিয়ে দিয়ে দেশকে পাকিস্তানিদের হাত থেকে রক্ষা করেছেন, সেই স্বাধীনতার দীর্ঘ ৫৩ বছর পরও দেশবাসীর স্বপ্ন পূরণ হয়নি। শোষণ, বঞ্চনা ও বৈষম্যের বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধ হলেও এখন সর্বক্ষেত্রে চরম বৈষম্য বিরাজ করছে।

রোববার বিকালে পুরানা পল্টনের আইএবি মিলনায়তনে ইসলামী মুক্তিযোদ্ধা পরিষদ বাংলাদেশের উদ্যোগে ‘বিজয়ের ৫৩ বছর; প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

সরকারকে নির্বাচন থেকে ফিরে আসার এবং নির্বাচনে দেশবাসীকে সহযোগিতা না করার আহ্বান জানান ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির। তিনি বলেন, দেশপ্রেমিক ইমানদার জনতা ভোটকেন্দ্র যাবে না এবং ভোটও দেবে না।

চরমোনাই পির বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের যখন বলেন— ভারত আছে তো আমরা আছি। তখন আমাদের শঙ্কা হয়— আমাদের স্বাধীনতা নিয়ে। সরকারের অতি তাঁবেদারির কারণে ভারত বাংলাদেশকে তাদের অঙ্গরাজ্য মনে করে যা ইচ্ছে তাই করছে।

‘পাতানো নির্বাচন’ বাতিল করে দেশকে ভয়াবহ সংঘাতের হাত থেকে রক্ষার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, সরকার জনগণের ভোটাধিকার কেড়ে নিয়েছে। বিরোধী দলবিহীন এক তরফা নির্বাচনের নামে দেশকে ভয়াবহ বিপর্যয়ের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। সরকার নির্বাচন নির্বাচন খেলার নামে দেশের হাজার হাজার কোটি টাকা নষ্ট করছে। এভাবে দেশের সম্পদ নষ্টের কোনো মানে হয় না।

বার্তাবাজার/এম আই