ঘড়িতে সময় তখন শনিবার (২৩ ডিসেম্বর) দুপুর দেড়টা। শুনসান নিরব রাজধানীর মিরপুরের শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থান। হঠাৎ সেখানে আসেন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঢাকা-১৪ আসনের আওয়ামী লীগ মনোনিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিল। প্রথমে গণমাধ্যমকর্মীরা ধারণা করেছিলেন এখানে কোনো মুক্তিযোদ্ধার কবর জিয়ারত করবেন তিনি। কিন্ত সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা শেষে কবরস্থানেই মিছিল শুরু করেন নিখিলের সমর্থকরা। কবরস্থানেই চলে নির্বাচনী প্রচারণার মিছিল।

মিছিলটি কবরস্থান প্রদক্ষিণ করে যায় নিখিলের স্থানীয় নির্বাচনী কার্যালয়ে। দুপুর হওয়ায় তখন সেখানে ছিল না তেমন জনসমাগম। তবে স্লোগানের সঙ্গে তাল মিলিয়ে সেখানে কয়েকজন নারী সমর্থককে নাচতে দেখা যায়। তাদের সঙ্গে যোগ দেন নৌকার প্রার্থীও। প্রচারণা শুরুর আগে কবরস্থানের ফটকে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক ও ঢাকা-১৪ আসনের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিল।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থীদের ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, বাংলাদেশের আওয়ামী লীগের একমাত্র প্রতীক হলো নৌকা প্রতীক। আমরা যারা আওয়ামী লীগের আদর্শের সৈনিক, যারা জননেত্রী শেখ হাসিনার কর্মী তাদের আদর্শের প্রতীক একটাই সেটা হলো নৌকা। নৌকা বাংলাদেশে ইতিহাস তৈরি করেছে, নৌকা বাংলাদেশ দিয়েছে, বঙ্গবন্ধুকন্যার হাত ধরে নৌকা আজকে বাংলাদেশকে বিশ্বের মঞ্চে পরিচিতি দিয়েছে। নৌকার বিকল্প বাংলাদেশে আর কোনো প্রতীক নেই।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শুধু আশ্বাস দেননি, উন্নয়ন করে দেখিয়ে দিয়েছেন। এ কারণে মানুষ নৌকাকেই চায়। মাঠের অবস্থা আল্লাহর রহমনে অনেক ভালো আছে। আমি বিশ্বাস করি জনগণ ভোট দিয়ে এই আসনে নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করবে।

ঢাকা-১৪ আসনে মোট ১৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। এর মধ্যে স্বতন্ত্র প্রার্থীই রয়েছেন ৫ জন, যার ৪ জনই আওয়ামী লীগের। বর্তমানে এই আসনে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণার কারণে নৌকার প্রার্থীর পাশাপাশি আলোচনায় রয়েছেন ট্রাক প্রতীকের সাবিনা আক্তার তুহিনও।

সকালে ভক্ত সমর্থকদের নিয়ে মিরপুরের বড় বাজার এলাকায় প্রচারণা চালান সাবিনা আক্তার তুহিন। পুরো এলাকার নির্বাচনী মাঠ নিজের দখলে রয়েছে দাবি করে এ সময় তুহিন বলেন, ট্রাক প্রতীকী হলেও মূলত শেখ হাসিনার মার্কায়ই নির্বাচন করছেন তিনি।

তিনি বলেন, দল যেহেতু স্বতন্ত্র হওয়ার সুযোগ দিয়েছে আমি দাঁড়িয়েছি। আমি বহিরাগত নয়, এই এলাকার মেয়ে এবং বৌ। পুরো এলাকার মানুষ ও আওয়ামী লীগ নেতারা আমার সাথে আছে। ৭ তারিখ জনগণকে নিয়ে ভোট দিয়ে বিজয় ছিনিয়ে এনে প্রধানমন্ত্রীর হাতকে শক্তিশালী করবো।

নির্বাচনী প্রতীক ট্রাক হলেও নিজেকে শেখ হাসিনার প্রার্থী বলে দাবি করে বিজয় ছিনিয়ে আনার আশাবাদ ব্যক্ত করেন সাবিনা আক্তার তুহিন।

বার্তাবাজার/এম আই