এবার ভূমধ্যসাগর বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দিয়েছে ইরান। দেশটির বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর কমান্ডার এ হুমকি দেন। শনিবার (২৩ ডিসেম্বর) বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ইরানের সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, দেশটির বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর কমান্ডার জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা গাজায় অপরাধ অব্যাহত রাখলে তারা ভূমধ্যসাগর বন্ধ করে দিবে। তবে দলটি কীভাবে বা কী ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হবে তার কোনো ব্যাখ্যা দেয়নি।

গাজায় গত ৭ অক্টোবর থেকে গাজায় হামলা চালিয়ে আসছে ইসরায়েল। ফিলিস্তিনে এ হামলার পেছনে মার্কিন সমর্থন রয়েছে বলে অভিযোগ হামাসের। তাদের হামলায় অন্তত ২০ হাজার ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া গৃহহীন হয়েছেন অসংখ্য মানুষ।

বার্তা সংস্থা তাসনিম ব্রিগেডিয়ার কো-অর্ডানেটিং কমান্ডার জেনারেল মোহাম্মদ রেজা নাকদির উদ্ধৃতি দিয়ে জানিয়েছে, তারা খুব দ্রুতই ভূমধ্যসাগর, জিব্রাল্টার প্রণালি ও বিভিন্ন জলপথ বন্ধ করে দিতে চলেছে।

ইরানের সঙ্গে ভূমধ্যসাগরের সরাসরি কোনো যোগাযোগ নেই। ফলে গার্ড সদস্যরা কী ধরনের পদক্ষেপ নিতে পারে তা স্পষ্ট নয়। এরপরও নকদি প্রতিরোধের নতুন শক্তির জন্ম এবং অন্যান্য জলপথ বন্ধ করার হুমকি দিয়েছেন।

এর আগে লোহিত সাগর দিয়ে চলালচলকারী বাণিজ্যিক জাহাজে ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহী গোষ্ঠীদের হামলার পরিকল্পনায় ইরান গভীরভাবে জড়িত বলে দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এসব বাণিজ্যিক জাহাজকে টার্গেট পরিণত করতে হুথিদের তেহরান গোয়েন্দা তথ্য সরবরাহ করেছে বলে দাবি ওয়াশিংটনের।

এদিকে গত মাস থেকে লোহিত সাগরে হুতিদের হামলার কারণে এ পথে জাহাজ চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে বিভিন্ন বিখ্যাত কোম্পানি। এমনকি এ সব কোম্পানি আফ্রিকার হোপ অব কেপ ঘুরে অতিরিক্তি সাড়ে তিন হাজার ন্যাটিক্যাল মাইল পাড়ি দিচ্ছে।

গত মঙ্গলবার লোহিত সাগরে বাণিজ্যিক জাহাজে ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহী গোষ্ঠীদের হামলা ঠেকাতে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে বহুজাতিক নৌজোট গঠনের কথা জানিয়েছে ওয়াশিংটন। এই জোটে যোগ দিতে ২০টির বেশি দেশ সম্মতি দিয়েছে। যদিও প্রথম দিকে ১০টি দেশের যোগ দেওয়ার কথা জানিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র।

বার্তা বাজার/জে আই