যুক্তরাষ্ট্রে ২০২৪ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে কলোরাডো থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবেন না ডোনাল্ড ট্রাম্প। দেশটির সাবেক এ প্রেসিডেন্টকে নির্বাচনে অযোগ্য ঘোষণা করে রায় দিয়েছেন কলোরাডো অঙ্গরাজ্যের শীর্ষ আদালত। মঙ্গলবার (১৯ ডিসেম্বর) এ ঐতিহাসিক রায় দেন আদালত। তবে ট্রাম্পকে আপিলের সুযোগ দিতে আগামী ৪ জানুয়ারি পর্যন্ত রায় কার্যকর হবে না।

২০২১ সালের ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটাল হিলে ট্রাম্প সমর্থকদের তাণ্ডবে প্ররোচনা দেওয়ায় ট্রাম্পের বিরুদ্ধে এই রায় দেওয়া হয়।

রায়ে বলা হয়, আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অঙ্গরাজ্যটি থেকে তিনি প্রার্থী হতে পারবেন না এবং কলোরাডোর প্রাথমিক ব্যালটেও অংশ নিতে পারবেন না।

ফলে এই প্রথম কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্ট প্রার্থীকে হোয়াইট হাউজে প্রবেশের অযোগ্য করা হলো। মূলত দেশটির সংবিধানের বলা আছে, যারা বিদ্রোহ বা অভ্যুত্থানের সঙ্গে যুক্ত থাকবে তারা মার্কিন প্রেসিডেন্ট হতে পারবেন না। এই ধারাই ট্রাম্পের ওপর প্রয়োগ করা হলো।

ট্রাম্পের প্রচার টিম জানায়, চূড়ান্ত অগণতান্ত্রিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে কলোরাডোর সুপ্রিম কোর্ট। রায়ের বিরুদ্ধে মার্কিন সুপ্রিম কোর্টে আপিল করবেন তারা।

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে দেওয়া আদালতের এই রায় কলোরাডোর রিপাবলিকান প্রাইমারি নির্বাচনের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে। তবে এই রায় আগামী ৫ নভেম্বরের মার্কিন সাধারণ নির্বাচনে যুক্তরাষ্ট্রের অন্যান্য অঙ্গরাজ্যের ভোটারদের ওপর প্রভাব বিস্তার করতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ট্রাম্প সমর্থকরা ২০২১ সালের ৬ জানুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস ভবনে হামলা করেছিল। সেই সময় কংগ্রেস সদস্যরা প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের জয়কে আনুষ্ঠানিক করার প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করছিলেন। হামলা করতে সমর্থকদের উসকানি দেওয়ায় ট্রাম্পকে অযোগ্য ঘোষণা করতে আদালতে তখন মামলা করা হয়েছিল। মামলাটি করেছিল কলোরাডো ভোটারদের একটি সংগঠন। সংগঠনটিকে মামলায় সহায়তা করে ওয়াশিংটনের সিটিজেনস ফর রেসপন্সিবিলিটি অ্যান্ড এথিক্স।

বার্তা বাজার/জে আই