আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে লালমনিরহাটের ৩টি সংসদীয় আসনের প্রতীক বরাদ্দ ও নির্বাচন আচরণ বিধিমালা বিষয়ক নির্দেশনা দিয়েছেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা। তিনটি আসনে প্রতীক পেয়েছেন ১৯জন প্রার্থী।

সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় থেকে প্রতীক ঘোষনা করা হয়। জেলার ৫টি উপজেলা মিলে মোট ৩টি সংসদীয় আসন রয়েছে। তিনটি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মোট ১৯জন প্রার্থী।

সংসদীয় ১৬-লালমনিরহাট-০১ (হাতীবান্ধা-পাটগ্রাম) আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মোঃ মোতাহার হোসেন (নৌকা), জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদের হাবিব মোঃ ফারুক (মশাল), বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের মোঃ আজম আজহার হোসেন (মোমবাতি), স্বতন্ত্র মোঃ আতাউর রহমান প্রধান (ঈগল), কে এম আমজাদ হোসেন তাজু (ট্রাক)সংসদীয় ১৭-লালমনিরহাট-২ (আদিতমারী-কালীগঞ্জ) আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নুরুজ্জামান আহমেদ (নৌকা), জাতীয় পার্টির মোঃ দেলোয়ার হোসেন (লাঙ্গল), বাংলাদেশ কংগ্রেসের মোঃ দেলাব্বর হোসেন (ডাব), মোঃ জাকের পার্টির মোঃ রজব আলী (গোলাপ ফুল), ন্যাশনাল পিপলস পার্টি (এনপিপি)র মোঃ শফিকুল ইসলাম (আম), স্বতন্ত্র মোঃ সিরাজুল হক (ঈগল), মোঃ মমতাজ আলী (ট্রাক)।

এবং সংসদীয় ১৮-লালমনিরহাট-৩ (লালমনিরহাট সদর) আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মোঃ মতিয়ার রহমান (নৌকা), জাতীয় পার্টির মোঃ জাহিদ হাসান (লাঙ্গল), জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদের আবু তৈয়ব মোঃ আজমুল হক পাটোয়ারী (মশাল), বাংলাদেশের সাম্যবাদী দল (এম.এল)র মোঃ আশরাফুল আলম (চাকা), তৃনমুল বিএনপির মোঃ শামীম আহম্মেদ চৌধুরী (সোনালী আঁশ), ন্যাশনাল পিপলস পার্টি (এনপিপি)র শ্রী হরিশ চন্দ্র রায় (আম), স্বতন্ত্র মোঃ জাবেদ হোসেন (ঈগল)।

জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং অফিসার মোহাম্মদ উল্যাহ জানান, লালমনিরহাটের তিনটি আসনে ১৯জন প্রার্থী রয়েছে। তাদের প্রত্যেককে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়ার পাশাপাশি নির্বাচন আচরণ বিধিমালা বিষয়ক নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

বার্তা বাজার/জে আই