বলিউডে ‘অ্যানিমেল’ ঝড় বইছে। গত ১ ডিসেম্বর মুক্তির পর থেকেই রেকর্ড গড়ছে রণবীর কাপুরের এই ছবি। ছবিটি পরিচালনা করেছেন সন্দীপ রেড্ডি ভাঙা। আর এই ছবিতেই প্রথমবারের মোট জুটি বেঁধে অভিনয় করেছেন রণবীর কাপুর-রাশমিকা মান্দানা।

‘অ্যানিমেল’ সিনেমার গল্প, রণবীর কাপুরের অভিনয় যেমন আলোচিত হয়েছে, তেমনি এ সিনেমায় ব্যবহৃত একটি মেশিনগান বিশেষভাবে নজর কেড়েছে দর্শকদের। সিনেমাটির ট্রেইলার প্রকাশের পরই আলোচনায় আসে এটি। আর সিনেমা মুক্তির পর এ নিয়ে আরও কৌতূহল বেড়েছে। শুরুতে দর্শকরা ভেবেছিলেন এটি সিজিআই (কম্পিউটার জেনারেটেড ইমেজ)। শুধু তাই নয়, বরং এটি বাস্তবে নির্মাণ করা হয়েছে। যার ওজন ৫০০ কেজি। এই মেশিনগান তৈরির পেছনের গল্প শুনিয়েছেন এর ডিজাইনার সুরেশ সেলভাজান।

এক সাক্ষাৎকারে সুরেশ সেলভাজান বলেন, আমরা যখন মেশিনগানটি তৈরি করি, তখন ভাবিনি এটি সফল হবে। আমি সন্দীপের লক্ষ্য অর্জনের জন্য কিছু একটা করছিলাম। কিন্তু কখনোই ভাবিনি এভাবে এটি ভাইরাল হবে। আমি যখন প্রথম সন্দীপের সঙ্গে সাক্ষাৎ করি, তখন সে বলেছিল, স্বাভাবিকের চেয়ে বড় একটি মেশিনগান লাগবে। আমি ভেবেছিলাম, স্বাভাবিকের চেয়ে বড় একটি মেশিনগান তৈরি করতে পারি। কিন্তু পুরো ঘটনা দেখে বলেছিলাম, এটি তৈরিতে ৪-৫ মাস সময় প্রয়োজন। পর্দায় যে মেশিনগানটি দেখেছেন তা তৈরিতে আমার ৫ মাস সময় লেগেছে।

মেশিনগানটি তৈরিতে ১০০ জন টেকনেশিয়ান ৫ মাস কাজ করেছেন। তা জানিয়ে সুরেশ বলেন, ‘ডিজাইন অনুযায়ী আমরা স্টেপ বাই স্টেপ কাজ এগিয়ে নিয়ে যাই। আমরা এমন কিছু করতে যাচ্ছিলাম, যা কোথাও পাওয়া যায় না। সুতরাং এটি তৈরি করার ক্ষেত্রে অন্য কোনো রেফারেন্স পাইনি। ৫০০ কেজি ওজনের মেশিনগানটি তৈরিতে ১০০ জন লোক কাজ করেছে। মেশিনগানটির জন্য ১৫-১৬ হাজার ডামি বুলেট তৈরি করেছি; পুরো মেশিনগানে স্টিল ব্যবহার করা হয়েছে।

সন্দীপ এমন একটি মেশিনগান চেয়েছিলে যা দর্শকদের মাঝে প্রভাব ফেলবে। এ তথ্য উল্লেখ করে সুরেশ বলেন, সন্দীপের কাছে এটা পরিষ্কার ছিল যে, আমরা এমন একটি মেশিনগান নির্মাণ করতে যাচ্ছি, যেটা খুব ভারী-বড় হবে এবং মানুষ এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় নিয়ে যেতে পারবে। মেশিনগান ও টেকনিশিয়ানদের প্রতি সন্দীপ খুব মুগ্ধ ছিল। ক্যাপ্টেন হিসেবে আমিও মুগ্ধ।

শুটিংয়ের আগে মেশিনগানটি দেখে অবাক হয়েছিলেন রণবীর কাপুরও। তার ভাষায়, সুরেশ ভাই প্রথম যখন যুদ্ধের এই মেশিনগানটি দেখান, তখন আমি অবাক হয়ে গিয়েছিলাম। স্কেচ থেকে তিনি এটি তৈরি করেছেন। এটি দেখতে একেবারেই সত্যিকারের মনে হয়। সন্দীপ রেড্ডি ও সুরেশ ভাইয়ের দারুণ একটি আইডিয়া এটি।

ছবিটিতে রণবীর এবং অনিল কাপুরকে পিতা-পুত্রের চরিত্রে দেখা যায়। এ ছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় রাশমিকা মান্দানা ও খল চরিত্রে ববি দেওলকে।

বার্তা বাজার/জে আই