ব্যাট হাতে নেমেছিলেন ওপেনিংয়ে। যখন আউট হন তখন ইনিংস শেষ হতে বাকি কেবল এক বল। এর মাঝে একপ্রান্ত আগলে রেখে ১৪৯ বলে ১২ চার ও এক ছক্কায় ১২৯ রানের অনবদ্য এক ইনিংস খেলেন বাংলাদেশি ওপেনার আশিকুর রহমান শিবলী।

সেঞ্চুরি করে মাঠেই সিজদা দেন শিবলী। যুবা এশিয়া কাপের চলতি আসরে তিনিই সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। সেই সাথে শিবলী- আরিফুলের ব্যাটে ইতিহাস গড়ে এশিয়া কাপ জয়ের স্বাদ পেল বাংলাদেশ।

ওপেনার শিবলীর অনবদ্য ইনিংস বাংলাদেশকে এনে দেয় বড় সংগ্রহ। বাকি কাজটুকু করেছেন বোলাররা। অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপের ফাইনালে আজ রবিবার (১৭ ডিসেম্বর) সংযুক্ত আরব আমিরাতকে ১৯৫ রানের বিশাল ব্যবধানে হারায় বাংলাদেশ।

প্রথমবার এশিয়া কাপে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্বাদ পায় বাংলাদেশ। এশিয়ার সেরা হওয়ার পথে একটি ম্যাচেও হারেননি রাব্বি- শিবলিরা। অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়ে আসর শেষ করেছে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। যেখানে ব্যাট হাতে সবচেয়ে বেশি অবদান রেখেছেন শিবলী।

পাঁচ ম্যাচে দুই সেঞ্চুরিতে ৩৭৮ রান করেছেন তিনি। আসরের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক বাংলাদেশি এই ব্যাটার। এর আগে এবারের এশিয়া কাপে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১৩০ বলে ১১ চার ও দুই ছক্কায় ১১৬ রানে অপরাজিত থাকেন এই ওপেনার।

অসাধারণ পারফরম্যান্সের স্বীকৃতিও পেয়েছেন শিবলী। ফাইনালের সেরা ব্যাটার তো হয়েছেনই, পেয়েছেন ম্যাচসেরার পুরস্কার। টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড়ের ট্রফিও ওঠে শিবলীর হাতে। ব্যক্তিগতভাবে চমৎকার এক টুর্নামেন্ট কাটালেন, বাংলাদেশও পেল চ্যাম্পিয়নের তকমা। ফাইনালে পুরস্কার প্রদান মঞ্চে এসে উচ্ছ্বাস ঝরে পড়ল এই যুবার কণ্ঠে।

শিবলী বলেন, ‘অসাধারণ লাগছে। আমরা চ্যাম্পিয়ন হয়েছি। এটি সবার অর্জন। আজ ব্যাটিংটা খুব উপভোগ করেছি। কিছু সময় পর থেকেই বল আসছিল ব্যাটে। সেই অনুযায়ী চেষ্টা করেছি নিজের ইনিংসটা লম্বা করতে। খুব ভালো লাগছে।’

বার্তা বাজার/জে আই