চীনের বেইজিংয়ে দুইটি পাতাল ট্রেনের সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত ৫১৫ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে ১০২ জনের শরীরের বিভিন্ন অংশের হাড় ভেঙে গেছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ। তবে এ দুর্ঘটনায় কারও মৃত্যু হয়নি।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় বেইজিংয়ের পশ্চিমাঞ্চলীয় পাহাড়ি অঞ্চলের বিস্তীর্ণ পাতাল রেল ব্যবস্থার চাংপিং লাইনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

শুক্রবার (১৫ ডিসেম্বর) এক বিবৃতিতে বেইজিং শহর পরিবহন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ভারী তুষারপাতের কারণে পিচ্ছিল ট্র্যাকগুলোতে ট্রেনের স্বয়ংক্রিয় ব্রেকিং সিস্টেম কাজ করছিল না। সময়মতো ব্রেক করতে না পারায় পেছনের টেনটি সামনে থেমে থাকা ট্রেনটিকে সজোরে ধাক্কা দেয়।

খবর পাওয়া মাত্রই জরুরি চিকিৎসা কর্মী, পুলিশ ও পরিবহন কর্তৃপক্ষের লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে যান। রাত ১১টার মধ্যে সব যাত্রীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহতদের সবাই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

জানা গেছে, যে ৫০০ জনকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছিল তাদের মধ্যে ৪২৩ জনকে শুক্রবার সকালের মধ্যে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। বাকিরা এখনো চিকিৎসাধীন। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, শুক্রবার সকাল পর্যন্ত আহতদের মধ্যে ২৫ যাত্রীকে পর্যবেক্ষণে এবং ৬৭ জনকে তখনও হাসপাতালে ভর্তি করে রাখা হয়।

বুধবার থেকে শুরু হওয়া অস্বাভাবিক তুষারপাতের কারণে বেইজিংয়ে ট্রেন চলাচল সাময়িকভাবে স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। সেই সঙ্গে বন্ধ রাখা হয়েছে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। তাপমাত্রা রাতারাতি মাইনাস ১১ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে যাওয়ায় সড়ক চলাচলেও সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

বেইজিংয়ে শীতকালে তীব্র ঠাণ্ডা থাকলে ভারী তুষারপাতের ঘটনা বিরল। কিন্তু এ বছর ব্যাপক হারে তুষারপাত ঘটছে।

বার্তা বাজার/জে আই