রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলায় শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবসে মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে ইউএনও’র অসৌজন্যমূলক আচরণ ও বাকবিতন্ডার ঘটনা ঘটেছে। এতে মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে।

বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) উপজেলা পরিষদ ভবনে আলোচনা সভা শুরুর আগে ইউএনও’র কক্ষে প্রবেশ করে কয়েকটি অভিযোগ তোলেন। এরই প্রেক্ষিতে কথা বলার এক পর্যায়ে ইউএনও মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ ও বাকবিতন্ডার জড়িয়ে পড়ে। এতে মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে।

মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে পরে কথা বলে জানা যায়, শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় যোগদানের জন্য ১০ থেকে ১৫ জন মুক্তিযোদ্ধা ইউএনও শাহরিয়ার রহমানের কার্যালয়ে প্রবেশ করেন। সভা শুরুর পূর্বে তারা ইউএনও’র কক্ষে প্রবেশ করে অভিযোগ তোলেন যে, উপজেলা পরিষদ চত্তরে মুক্তিযোদ্ধা উদ্যানের ভিত্তি প্রস্ত স্থাপন ও মুক্তিযোদ্ধাদের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে তাদের কেনো জানানো হয় না। প্রতিউত্তরে ইউএনও’র মন্তব্য শুনে ফুঁসে ওঠেন মুক্তিযুদ্ধারা। এক পর্যায়ে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়লে ইউএনও মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে অসৌজন্যমুলক আচরণ করেন।

এ সময় মুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমান বলেন, কয়েকটি বিষয় নিয়ে আমরা ইউএনও’র কাছে গিয়েছিলাম। তিনি আমাদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেছেন। তিনি অভিযোগ করে আরও বলেন, মুক্তিযোদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে অনেক অনুষ্ঠানে আমাদের জানানো হয়না। অনেক বিষয়ে আমরা জানিওনা। একই কথা বলেন আরেক মুক্তিযোদ্ধা জালাল উদ্দিনসহ অনেকে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) শাহরিয়ার রহমানের মুঠোফোনে একাধিকবার কল করে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। দেখা করা করার চেষ্টা করা হলেও এড়িয়ে যান।

বার্তাবাজার/এম আই