অবৈধ চাঁদা না দেওয়ায় পাবনার চাটমোহর পৌর এলাকায় সাগর হোসেন (২৭) নামের ইউনিলিভারের ডিলারের গাড়ি চালককে বেধরক মারধর ও টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগ উঠেছে। এঘটনার সিসিটিভি ফুটেজসহ অভিযোগ দিলেও চারদিন অতিবাহিত হলেও এখনো মামলা নেয়নি পুলিশ। তবে মারধরের বিষয়টি স্বীকার করলেও ছিনতাইয়ের বিষয়টি অস্বীকার করেছে অভিযুক্তরা।

অভিযোগসূত্রে জানা গেছে, গত রবিবার (১০ ডিসেম্বর) দুপুরের দিকে ইউনিলিভারের ডিলার পার্থ প্রতিম সাহার বংশী মহরাজ এন্ড এগ্রো টেকনোলজির গাড়ি চালক সাগর ও ডেলিভারী ম্যান বিজয় কুমার দাস মালবাহী কাভার্ডভ্যান নিয়ে আসছিলেন। এসময় চাটমোহর পৌর এলাকার বাসস্ট্যান্ডে তাদের গতিরোধ করে পৌর এলাকার টোল আদায়কারী সাইফুল ইসলাম সুজা চাঁদাদাবি করেন। তাদের গাড়ি থেকে চাঁদা দেওয়ার নিয়ম নেই জানিয়ে চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে অভিযুক্ত সুজার ছেলে শাওন ও সাগর গাড়িচালক সাগরকে বেধরক মারধর করেন। জীবন বাচাতে সাগর পাশের একটি অন্য কারখানায় আত্মগোপন করলেও শাওন ও সাগর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সেখানে প্রবেশ করেন এবং সাগরকে আবারও বেধরক মারধর করেন। এসময় আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে তারা পালিয়ে যায়। পরে সাগরকে প্রথমে চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে পরে আটঘরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এবিষয়ে অভিযুক্ত সাইফুল ইসলাম সুজা বলেন, আমি নিয়ম অনুযায়ীই তাদের কাছে গাড়ির চাঁদা চেয়েছি। কিন্তু তারা দিতে অস্বীকার করেন এবং আমার ওপরই হামলার চেষ্টা করেন। এসময় আমার ভাতিজা পাশে থেকে সাগরকে কয়েকটা কিলঘুষি মেরেছে। আর টাকা নেয়ার অভিযোগটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

এঘটনার আশ্রয় নেয়া কারাখানার সিসিটিভির ফুটেজ থাকলেও এখনো মামলা নেয়নি পুলিশ। এবিষয়ে ক্যামেরার সামনে বক্তব্য দিতে অস্বীকার করেন চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম রেজা। তবে তিনি জানান, অভিযোগ পেয়েছি। তাদের মধ্যে মিমাংশা হওয়ার কথা। না হলে অভিযোগ তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বার্তা বাজার/জে আই