চলতি বছর ‘জুবিলি’ ওয়েব সিরিজে অভিনয়ে দর্শকদের নজর কেড়েছেন বলিউড অভিনেত্রী অদিতি রাও হায়দারি। রীতিমতো তার প্রশংসায় পঞ্চমুখ সিনেমাপ্রেমীরা। অন্যদিকে পশ্চিমদিকের জনপ্রিয় অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। এই সিনেমার গুরুত্বপূর্ণ একটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনিও।

মঙ্গলবার (১২ ডিসেম্বর) কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবের অংশ নিতে কলকাতায় এসেছিলেন অদিতি। এসময় প্রসেনজিৎ অভিনেত্রীর কাছে পিতৃসুলভ’ বলে মন্তব্য করেন। পাশাপাশি ভূয়সী প্রশংসাও করেন তার।

উৎসবে ‘জুবিলি’তে অদিতি অভিনীত সুমিত্রা কুমারী চরিত্রটির পাশাপাশি শ্রীকান্ত রায় চরিত্রটি নিয়েও বেশ আলোচনা হয়েছে। আর এই চরিত্রেই অভিনয় করেছিলেন টলিউডের প্রসেনজিৎ।

জানা গেছে, ‘বোম্বে টকিজ’র প্রতিষ্ঠাতা হিমাংশু রায় এবং দেবিকা রানির জীবনের গল্পেই মূলত নির্মিত হয়েছে ‘জুবিলি’। সেখানে প্রসেনজিৎকে ‘বুম্বাদা’ বলেই সম্বোধন করেন অদিতি।

প্রসেনজিতের প্রশংসা করে অভিনেত্রী বলেন, বুম্বাদা অসাধারণ একজন অভিনেতা। খুবই ভালো মানুষ। সেটে মাঝেমধ্যেই মেকআপ ভ্যানে এসি বন্ধ থাকত। আমরা সবাই গরমে ঘেমে যেতাম। কিন্তু দাদাকে দেখতাম, চুপচাপ বসে রয়েছেন। প্রসেনজিৎ অভিনেত্রীকে নানা ভাবে অনুপ্রাণিত করেছেন বলেই জানান অদিতি।

অদিতি আরও বলেন, চারশোরও বেশি সিনেমায় অভিনয় করা একজন অভিনেতা এখনও সমান উত্তেজনা নিয়ে সেটে আসেন এবং চরিত্রে নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করেন। এই বিষয়টা দাদার কাছ থেকে শিখলাম। দেখে মনে হতো, যেন এই প্রথম সেটে এলেন।

অভিনেত্রীর ভাষ্য, ‘জুবিলি’র সেটে তাদের পুরো টিমের খেয়াল রাখতেন প্রসেনজিৎ। বলা যায়, বুম্বাদা আমার কাছে পিতৃসুলভ এক মানুষ।

কথা প্রসঙ্গে অদিতি জানান, কলকাতায় আসতে ভীষণ পছন্দ করেন অদিতি। তাই সেখানে যেতে ভালোই লাগে তার। বাংলায় সংস্কৃতির খুব কদর করা হয়। কারণ অভিনেত্রীর মা শাস্ত্রীয় সঙ্গীতশিল্পী। তাই মায়ের সঙ্গে মাঝেমধ্যেই কলকাতায় যেতেন তিনি।

বার্তা বাজার/জে আই