আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস উপলক্ষ্যে ঢাকায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে গণঅধিকার পরিষদ। রোববার দুপুরে বিক্ষোভ মিছিলটি বিজয়নগর পানির ট্যাংকি থেকে শুরু করে নয়াপল্টন হয়ে পুরানা পল্টন মোড় ঘুরে শেষ হয়। এতে কয়েকশত নেতাকর্মী অংশগ্রহণ করেন।

বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী সংক্ষিপ্ত সমাবেশে গণঅধিকার পরিষদের সদস্য সচিব (ভারপ্রাপ্ত) ফারুক হাসান বলেন, আজ বিশ্ব মানবাধিকার দিবস। মানবাধিকার দিবসে বাংলাদেশ সরকার ভয়াবহভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে। আজকে দেশের জনগণের মানবাধিকার থেকে শুরু করে কোনো অধিকারই নেই। আমরা কথা বলতে গেলেই আমাদের উপর চালানো হচ্ছে নির্যাতন। সরকার আমাদেরকে নানাভাবে চাপ দিয়েও নির্বাচনে অংশ নেওয়াতে পারেনি। আমরা গণঅধিকার পরিষদ পরিষ্কার ভাষায় বলতে চাই, এই অবৈধ সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচনে আমরা এ দেশে হতে দিবো না। রাজনৈতিক দলগুলোর ইমানের পরীক্ষা শুরু হয়ে গেছে। যারা ইমানের এই পরীক্ষায় পাস করবে তারা ইতিহাস করবেন, আর যারা সরকারের সাথে আঁতাত করবে তারা ইতিহাসের আস্তাকুঁড়ে নিক্ষিপ্ত হবে।

যতই চাপ আসুক, যতই নির্যাতন আসুক আমরা প্রয়োজনে কেরানীগঞ্জ কারাগারে যাবো, তবুও এই সরকারের পাতানো ফাঁদে পা দিবো না। সরকার এখন লাগামছাড়া পাগলা ঘোরার মতন আচরণ শুরু করেছে। তারা যেকোনো মূল্যে ক্ষমতায় আসতে মরিয়া হয়ে উঠেছে।

গণঅধিকার পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক কর্ণেল অবঃ মিয়া মসিউজ্জামান বলেন, সরকার এখন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাদের কেনা-বেচা শুরু করেছে। বর্তমান এই শেখ হাসিনার সরকার হলেন নব্য রাজাকারের সরকার। যারা শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে যাচ্ছে, তারাও নব্য রাজাকার। আমরা গণঅধিকার পরিষদ এই নব্য রাজাকারের অধীনে কোনো নির্বাচন হতে দিবো না।

গণঅধিকার পরিষদের নেতা আতাউল্লাহর সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন, সাদ্দাম হোসেন, তারেক রহমান, এডভোকেট শিরিন আকতার, জিয়াউর রহমান, আরিফ বিল্লাহ, মোহাম্মদ শামসুদ্দিন, মোজাম্মেল মিয়াজি, মাববুবুল হক শামীম, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের গণনেতা ইমাম উদ্দিন,ফায়সাল, গণঅধিকার পরিষদ উত্তরের গণনেতা মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, শফিকল ইসলাম রতন, যুব অধিকার পরিষদের আহবায়ক সাকিব হোসাইন, সদস্য সচিব সোহেল মৃধা, ছাত্র অধিকার পরিষদের সদস্য সচিব মুনতাসীর মাহমুদ প্রমুখ

বার্তাবাজার/এম আই