ইসরায়েলকে আরও অস্ত্র সহায়তা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটি এবার ইসরায়েলের ট্যাংকের কার্তুজসহ অন্যান্য সরঞ্জামের জন্য ১০২ মিলিয়ন ডলার সহায়তা দিতে চলেছে। শনিবার (৯ ডিসেম্বর) আলজাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

পেন্টাগন জানিয়েছে, মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্ট ইসরায়েলের জন্য এ সহায়তা অনুমোদন দিয়েছে। এ বিলের আওতায় ইসরায়েলকে ১২০ মিলিমিটার হাই এক্সপ্লোসিভ অ্যান্টি-ট্যাঙ্ক মাল্টি-পারপাস উইথ ট্রেসার (এমপিএটি) কার্তুজ ও এর আনুষঙ্গিক সরঞ্জাম সহায়তা দেওয়া হবে। এসব অস্ত্র ইসরায়েলের কাছে বিক্রি করবে যুক্তরাষ্ট্র।

পেন্টাগনের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, মার্কিন সেনাবাহিনী তাদের মজুদ থেকে ইসরায়েলের কাছে ১২০ মিলিমিটার হাই এক্সপ্লোসিভ অ্যান্টি-ট্যাঙ্ক মাল্টি-পারপাস উইথ ট্রেসার (এমপিএটি) কার্তুজ বিক্রয় করবে। এ ছাড়া তারা এর সংশ্লিষ্ট সরঞ্জামও দিবে বলে বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

ইসরায়েলকে নিরাপত্তা সহায়তা ও অস্ত্র বিক্রি উভয় দিক দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র সবসময় সর্বোচ্চ সহায়তা দিয়ে আসছে। যুদ্ধের শুরু থেকে বাইডেন প্রসাশন ইসরায়েলকে সহায়তা দিয়ে আসছে। তারা যুদ্ধ শুরুর পর নিজেদের রণতরীও মধ্যপ্রাচ্যে পাঠিয়েছে।

সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউক্রেনের জন্য প্রস্তুত করা অস্ত্রও ইসরায়েলের জন্য পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এ ছাড়া এ অঞ্চলে বিভিন্ন সামরিক ঘাঁটিতেও সৈন্য বাড়িয়েছে তারা।

এদিকে তুরস্কের গণমাধ্যম আনাদোলু জানায়, গাজা উপত্যকায় যুদ্ধ বন্ধে একটি শর্ত দিয়েছে ইসরায়েল। বৃহস্পতিবার ইসরায়েলের এক মুখপাত্র বলেন, হামাস যদি আত্মসমর্পণ করে এবং সব বন্দিকে মুক্তি দেয় তবেই যুদ্ধ শেষ হতে পারে।

ওফির গেন্ডেলম্যান নামের বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর এ মুখপাত্র বলেন, শুধু একটি শর্তে যুদ্ধ শেষ হতে পারে তা হচ্ছে- হামাস নেতাদের আত্মসমর্পণ এবং ইসরায়েলি বন্দিদের মুক্তি।

তিনি আরও বলেন, আমাদের সৈন্যরা ইয়াহিয়া সিনওয়ার নামের হামাস নেতার বাসা ঘিরে ফেলেছে এবং তাকে দ্রুত গ্রেপ্তার করাই আমাদের লক্ষ্য।

উল্লেখ্য, গত ৭ অক্টোবর হামাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণার পর থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে সামরিক সরঞ্জামবাহী ২০০ কার্গো প্লেন গেছে ইসরায়েলে। এসব সামরিক সরঞ্জামের মধ্যে গোলা, সাঁজোয়া যান ও অন্যান্য অস্ত্র রয়েছে। তবে কোন দেশ থেকে কী পরিমাণ সামরিক সহায়তা পেয়েছে, তা জানাতে অস্বীকার করেছে ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। যুক্তরাষ্ট্রও এ বিষয়ে সরাসরি তেমন কিছু প্রকাশ করে না।

বার্তা বাজার/জে আই