সাতক্ষীরার ইছামতি নদীর শাখা ভাতশালা-কোমপুর স্লুইস গেট সংলগ্ন এলাকায় মনিরুল ইসলাম (৫২) নামের এক মৎস্য শিকারির মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) ভোরে পথচারীরা মরদেহটি দেখে জনপ্রতিনিধিদের খরব দেয়। পরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও গ্রামবাসি মরদেহটি মৎস্য শিকারি মনিরুল ইসলামের বলে প্রাথমিক সনাক্ত করে। নিহত ব্যক্তি দেবহাটা উপজেলার কুলিয়া ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের মৃত আলাউদ্দীনের ছেলে।

পারুলিয়া ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ফরহাদ হোসেন হিরা জানান, ভাতশালা-কোমপুর স্লুইস গেট সংলগ্ন খালে মনিরুল ইসলাম প্রতিদিন মাছ ধরতে আসে। প্রতিদিনের ন্যায় বুধবার মাছ ধরতে এসে আর বাড়িতে ফিরিনি। ভোরে পথচারীরা তাকে পড়ে থাকতে দেখে আমাদের খবর দেন। পরে স্থানীয়রা মনিরুলকে শনাক্ত করলে তার পরিবারে খবর পাঠানো হয়। তিনি আরো জানান, যেখানে দেহটি পড়ে আছে তার পাশে খালে মাছ ধরা বঁড়শি পাতা এবং মাছের পাত্রটি রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে বাথরুম শেষে খাল থেকে পানি ব্যবহার করে ওঠার সময় রাস্তার পাশে অসুস্থ হয়ে পড়ে মারা যেতে পারেন। তবে তিনি বহুদিন ধরে অসুস্থ থাকায় ভারী কোন কাজ করতে পারেন না।

দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বাবুল আক্তার জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। মর দেহটি ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হবে। এরপর মৃত্যুর সঠিক কারণ বলা যাবে। তবে ওই ব্যক্তি ইতোপূর্বে আর কয়েকবার স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়েছিল বলে জানাতে পেরেছি।

বার্তা বাজার/জে আই