আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঢাকা-১৯ আসনে জয়ের ব্যাপারে নিজের আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন আশুলিয়া থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) সকাল ১১টায় সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা সাভার উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে মনোনয়নপত্র জমাদান শেষে গণমাধ্যমকে একথা বলেন তিনি।

ঢাকা-১৯ এর এই স্বতন্ত্র প্রার্থী জানান, ‘আমি জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী হয়েই এই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। পাথালিয়া এবং ইয়ারপুর ইউনিয়নের দুই চেয়ারম্যান সহ অনেক সিনিয়র আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ এবং আপামর জনসাধারণের দাবী যে, নির্বাচন আসলে মানুষ আমাকে ভোট দিয়ে বিপুল ভোটে বিজয়ী করবে। আর এটাই বর্তমানে সাভারবাসীর প্রত্যাশা। আমিও দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি- সুষ্ঠু, স্বাভাবিক এবং সকলের জন্য সমান ফিল্ড থাকলে অবশ্যই এই নির্বাচনে আমি বিজয়ী হবো।’

এপ্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ইতোমধ্যে ঘোষণা দিয়েছেন এবারের নির্বাচন অত্যন্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ এবং সকলের জন্য মাঠ সমান থাকবে। ওনার এই প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী আমি এই নির্বাচনে দাঁড়িয়েছি। আমি আশাকরি লেভেল প্লেইং ফিল্ড থাকবে এবং এই নির্বাচনে আমি বিজয়ী হবো।’

এসময় উপস্থিত গণমাধ্যমকর্মীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম। ঢাকা-১৯ আসনে এবার একজন প্রতিমন্ত্রী এবং একজন সাবেক সংসদ সদস্য নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন, সেক্ষেত্রে তাদের দ্বারা একজন নতুন সংসদ সদস্য প্রার্থী হিসাবে নির্বাচন কোনোরকম প্রভাবিত হতে পারে এমন আশংকা করছেন কিনা এই প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘দুইজন হেভিওয়েট প্রার্থী তার মধ্যে একজন রানিং মিনিস্টার, তারা যার যার অবস্থান থেকে নির্বাচনকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করতেই পারে। এখানে আপনারা যারা মিডিয়ার ভাইয়েরা রয়েছেন, প্রশাসনের কর্মকর্তারা আছেন- আমি আশা করবো এব্যাপারে আপনারা সতর্ক দৃষ্টি রাখবেন যাতে কেউ সরকারের প্রভাব বিস্তার করে নির্বাচনকে প্রভাবিত করার দ্বারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কোনো দুর্নাম করতে না পারে। আর আমরা আশা করবো, সরকারের তরফ থেকেও নির্দেশনা দেওয়া হবে কেউ যাতে এই নির্বাচনকে প্রভাবিত করতে না পারে।’

ঢাকা-১৯ আসনের ভোটারদের কী প্রতিশ্রুতি দেবেন এমন প্রশ্নের জবাবে আশুলিয়া থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ঢাকা-১৯ আসনের ভোটারদের এই প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, তাদের ভোটে আমি বিজয়ী হলে এই সংসদীয় আসনের প্রত্যন্ত অঞ্চলে প্রথমেই আরসিসি ঢালাই দ্বারা রাস্তাঘাটের উন্নয়ন করে দেবো। সাভারে কোনো প্রকার অন্যায়-অত্যাচার এবং সন্ত্রাসী কর্মকান্ড হতে দেবো না, পাশাপাশি মাদকের বিস্তার রোধে সর্বোচ্চটা করে একে নির্মুলের চেষ্টা চালাবো।’

ঢাকা-১৯ আসনে তিনজন আওয়ামী লীগের প্রার্থী নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন, এতে করে আওয়ামী লীগের সাধারণ কর্মীরা কার পক্ষ নেবে এবং তারা বিভ্রান্ত হচ্ছেন কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে সাইফুল ইসলাম জানান, ‘আমি মনে করি না ভোটাররা এবং সাধারণ কর্মীরা এব্যাপারে বিভ্রান্ত রয়েছেন। ভোটাররা অলরেডি সিদ্ধান্ত নিয়ে নিয়েছেন কাকে ভোট দেবেন। আমি আশুলিয়া থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, ডা: এনামুর রহমান ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি। আমাদের সাধারণ নেতাকর্মীরা ইতোমধ্যেই বিভাজিত হয়ে গিয়েছেন এবং সাধারণ ভোটাররাও সিদ্ধান্ত নিয়ে নিয়েছেন কাকে ভোট দেবেন।’

মনোনয়নপত্র জমাদানকালে এসময় পাথালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পারভেজ দেওয়ান, ইয়ারপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শামীম আহমেদ সুমন প্রমুখসহ আশুলিয়া থানা আওয়ামী লীগের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

বার্তাবাজার/এম আই