ঘরে থাকা সবকিছু পুড়ে ছাই হলেও পুড়েনি ইসলাম ধর্মের পবিত্র মহাগ্রন্থ আল কোরআন। এমন এক ঘটনা ঘটেছে কমলনগরের মার্টিন ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের মাহফুজ মাঝির বাড়িতে।

স্থানীয়রা বলেন, সোমবার (৬ নভেম্বর) কমল নগরের চর মার্টিন ইউনিয়নের মাহফুজ মাঝির বাড়িতে রাত ৮ টার সময় বিদ্যুতের শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। এই সময় ঘরে থাকা সকল আসবাবপত্র ও নগদ টাকা পুড়ে যায়।

মাহফুজের স্ত্রী হাসিনা বলেন, গতকাল রাত ৮টার সময় বেশ কয়েকবার বিদ্যুৎ আসা-যাওয়া করছিল। হঠাৎ আমাদের বিদ্যুতের বোর্ড থেকে একটি বিকট আওয়াজ শুনতে পাই। এর কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে পুরো ঘরে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। তাৎক্ষণিক আমি আগুন দেখে চিৎকার দিলে বাড়ির আশপাশের লোকজন ছুটে আসে। সবাই আশপাশে থাকা জিনিসপত্র দিয়ে আগুন নিভানোর চেষ্টা করে। এতে কোন আগুন নিভানো সম্ভব হয়নি। ঘরে থাকা জেলেদের জন্য রাখা নগদ ১ লক্ষ টাকা, আমার উপার্জনের ১৫ হাজার টাকা ও ধার রেখে যাওয়া ৫ হাজার টাকা পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এছাড়া ঘরে থাকা আমার টেইলার্সের সকল কাপড়-চোপড় পড়ে যায়।

হাসিনার শাশুড়ি বলেন, ঘরের সব কিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে, কিন্তু আল্লাহর কিতাবের আর পাশে সাদা অংশ পুড়ে গেলেও একটি অক্ষরও পুড়ে যায়নি। এই খবরটি ছড়িয়ে পড়ার কারণে দূরদূরান্ত থেকে অনেক মানুষ নিজ চোখে দেখার জন্য ভীড় করছেন তাদের বাড়িতে।

খবর পেয়ে সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন মার্টিন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইউসুফ আলী। তিনি বলেন গতকাল রাতে আমি এই খবরটি পেয়েছি। এখন আমি একটি বিশেষ কাজে এলাকার বাহিরে ছিলাম। খবরটি পেয়ে আমি ফায়ার সার্ভিসকে জানিয়েছি। তারা এসে দেখে সব পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। আজ সকালবেলা আমি এসে দেখি বাড়ির সব কিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

এতে পরিবারটির প্রায় ৫ থেকে ৬ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। এ বিষয়ে আমি উপজেলা চেয়ারম্যান ও ইউএনওকে জানিয়ে তাদের আর্থিক সাহায্য পাওয়ার ব্যবস্থা করব।

বার্তা বাজার/জে আই