বিদেশে চিকিৎসার জন্য আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেওয়ার দাবি জানিয়েছে বিএনপি। বেঁধে দেওয়া এই সময়ের মধ্যে দাবি বাস্তবায়িত না হলে আরও কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়েছে দলটি।

রোববার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নয়াপল্টনে আয়োজিত সমাবেশে এই দাবি জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

উন্নত চিকিৎসার জন্য দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে বিদেশে পাঠানোর দাবিতে ওই প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে ঢাকা মহানগর বিএনপি।

সমাবেশে মির্জা ফখরুল বলেন, আপনারা সবাই জানেন, এই সরকার মিথ্যা মামলায় বেগম খালেদা জিয়াকে আটকে রেখেছে। যেখানে নিম্ন আদালত ৫ বছর সাজা দেয়, সেখানে উচ্চ আদালত সাজা বাড়িয়ে ৭ বছর করেছে। তাহলে আদালতের কি অবস্থা একবার খেয়াল করেন।

বিএনপির শীর্ষ এই নেতা বলেন, আজকে খালেদা জিয়ার যদি কিছু হয়ে যায় তবে শুধু তার ক্ষতি নয়, বিএনপির ক্ষতি নয়, দেশের বড় ক্ষতি হয়ে যাবে।

ফখরুল বলেন, আজকে তাদের বুকে আগুন জ্বলছে। বড় আশা তিনি ৬৫ জন নিয়ে ওখানে গেছিলেন, ছবি তুলার জন্য। সেখানে বসেই তিনি সেই খবর পেলেন। আজকে তারা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে অন্যায়ভাবে ব্যবহার করার জন্য গ্রেনেড আমদানি করছে। আজকে কিছু অতি উৎসাহী পুলিশ এখনও অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করছে। আমারা তাদের বলছি সতর্ক হয়ে যান।

এর আগে বিকেল ৩টার দিকে কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে রাজধানীর নয়াপল্টনে এই সমাবেশ শুরু হয়। তবে সমাবেশ শুরুর কিছুক্ষণের মধ্যেই বৃষ্টি আরম্ভ হয়। এতে সমাবেশে আসা কিছু কর্মী আশপাশের মার্কেটের বারান্দায় আশ্রয় নিলেও অধিকাংশ নেতাকর্মীই বৃষ্টি উপেক্ষা করে সমাবেশস্থলে অবস্থান করেন। একই সময় বিএনপি নেতৃবৃন্দ তাদের বক্তব্যে বলেন, ঝড় বৃষ্টি উপেক্ষা করেই আমাদের আন্দোলন চলবে।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালামের সভাপতিত্বে আয়োজিত ওই সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ছাড়াও সিনিয়র ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দও বক্তব্য রাখেন।

বার্তা বাজার/জে আই