দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট ধানের জমির কাঁদায় পড়ে থাকা অবস্থায় এক বৃদ্ধের মরদেহ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। নিহত ওই বৃদ্ধ হলেন তাইজুল ইসলাম (৫৫)। পরিবারের দাবি তিনি দীর্ঘদিন থেকে মানসিক রোগে ভূগছিলেন।

বৃহস্পতিবার ভোরবেলা উপজেলার পালশা ইউনিয়নের ইছলা গ্রামের একটি ধানের জমি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ওই জমির মালিক স্থানীয় লাবু চৌধুরী। আজিজার রহমান নামে এক ব্যক্তি ওই জমির আধিয়ার।

নিহত তাইজুল পালশা-পূর্বপাড়া গ্রামের মৃত আলম মিয়ার ছেলে। মৃতদেহের পাশে থেকে একটি খালি পেপসির বোতল এবং গুলের ডিব্বা পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ।

স্থানীয়দের বরাদ দিয়ে পুলিশ জানান, অন্যান্য দিনের মত আজ ভোরে নিজ বাড়ি থেকে বের হয় নিহত তাইজুল। সকাল সাড়ে ৭টার সময় স্থানীয় লোকজন জমিতে পড়ে থাকতে দেখে। তার পুরো শরীরে জমির কাঁদা মাখানো ছিল। পরে স্থানীয়রা থানায় খবর দেয়।

স্থানীয় পালশা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের সদস্য (মেম্বার) আতিয়ার রহমান বলেন, নিহত তাইজুল বেশ কিছুদিন থেকে মানসিক নানা রকম রোগে আক্রান্ত ছিলেন। পরিবারের পক্ষ থেকে রংপুর এবং জয়পুরহাটে তার একাধিকবার চিকিৎসাও করানো হয়েছে। তবে আমরা বুঝে উঠতে পারছি না যে, এটি হত্যা, আত্মহত্যা নাকি অন্য কোন স্বাভাবিক মৃত্যু।

ঘোড়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন, নিহতের পরিবার এবং এলাকাবাসী ধারণা অসুস্থতাজনিত কোন কারণে তিনি মৃত্যু বরণ করেছে। তবে হত্যা নাকি আত্মহত্যা, তা নিরুপণে ময়না তদন্তের জন্য মরদেহ দিনাজপুর এম.আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। স্থানীয়দের মাধ্যমে জানতে পেরেছি তিনি গতকাল (বুধবার) গ্রামের বিভিন্ন মানুষের কাছে মাফ চেয়েছেন।

বার্তা বাজার/জে আই