সামনে দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচন। কোনো নির্দিষ্ট দলের জন্য এই নির্বাচন থেমে থাকে না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, বিএনপি নেতারা নির্বাচনের তপশিল ঘোষণা করা নিয়ে হীন উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে বক্তব্য প্রদান করেছেন। এই বক্তব্যে বিএনপির ধারাবাহিক ষড়যন্ত্র, চক্রান্ত ও পেছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতা দখলের অপতৎপরতার বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে।

রোববার (৩ সেপ্টেম্বর) গণমাধ্যমে পাঠানো সংবাদ বিবৃতিতে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়া বিএনপি বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক অভিযাত্রাকে নস্যাৎ করতেই নির্বাচন প্রক্রিয়াকে প্রশ্নবিদ্ধ করার লাগাতার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। জনগণের মুখোমুখি হতে ভয় পেয়ে বিএনপি ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের পথে রাজনীতি করছে।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপি তাদের ভুয়া ভোটার ব্যাংক নষ্ট হওয়ায় এবং পেছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতা দখলের সুযোগ না থাকায় নির্বাচনে অংশ গ্রহণে ভয় পায়।

তিনি বলেন, যাদের হাত ধরে গণতান্ত্রিক পরিবেশ বিনষ্ট হয়েছে, তারা আজ গণতন্ত্রের কথা বলে। হাওয়া ভবনের দুর্নীতি, লুটপাট ও দুঃশাসনের গডফাদার এবং সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষকদের মুখে গণতন্ত্রের কথা মানায় না।

কাদের বলেন, বহিরাবরণে লুটপাটতন্ত্রের নীতি ও অন্তরে অগণতান্ত্রিক মানসিকতা ধারণ করে বিএনপি সবসময় শাসন করেছে। তাই দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতি তাদের চোখে পড়ে না।

বিএনপি নেতাদের আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘তাদের রাজনৈতিক দর্শনের চশমার লেন্স পরিবর্তন করতে হবে। তাহলেই তারা দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতি ও সমৃদ্ধির অভিযাত্রা দেখতে সক্ষম হবেন।’

বার্তাবাজার/এম আই