মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে সৃষ্ট লঘুচাপে ৩ নম্বর সর্তকতা সংকেতের কারণে নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার মেঘনা নদীতে অস্বাভাবিক জোয়ারের পানি বেড়েছে। জোয়ারে সকাল থেকে নিঝুমদ্বীপসহ হাতিয়ার বেশ কিছু নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। হাতিয়ার সঙ্গে সারা দেশের নৌ চলাচল বন্ধ রেখেছে কর্তৃপক্ষ।

দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সব ধরনের নৌযানকে উপকূলের কাছাকাছি থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, লঘুচাপের প্রভাবে হাতিয়ার মেঘনা ও পার্শ্ববর্তী বঙ্গোপসাগর উত্তাল রয়েছে, চলছে ৩ নম্বর স্থানীয় সর্তকতা সংকেত। সকাল থেকে উপজেলায় বৃষ্টি ও প্রচণ্ড বেগে বাতাস বইছে। বাতেসের দমকা হাওয়ার কারণে নদী পারাপারে ঝুঁকি থাকায় সকাল থেকে সাময়িক নৌ-চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে।

এদিকে, হাতিয়ার নিঝুমদ্বীপের দক্ষিণে দমারচর এলাকায় ৩টি মাছ ধরার ট্রলারের ইঞ্জিন বিকল হয়ে নদীতে ভাসছে। খবর পেয়ে কোস্টগার্ডের একটি দল উদ্ধার অভিযানে নেমেছে। এখন পর্যন্ত ৪২জন মাঝি মাল্লাকে বিভিন্নভাবে স্থানীয় জেলেরা জীবিত উদ্বার করেছে।

বার্তাবাজার/এম আই