১৬, জানুয়ারী, ২০১৯, বুধবার | | ৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০

সাভারে বিজিবি মেজরের বিরুদ্ধে এক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে মারধরের অভিযোগ

আপডেট: জানুয়ারি ১৪, ২০১৯

সাভারে বিজিবি মেজরের বিরুদ্ধে এক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে মারধরের অভিযোগ

মোঃ আল মামুন খান, সাভার প্রতিনিধি: এবার অভিযোগের তীর নিক্ষিপ্ত হলো এক বিজিবি মেজরের বিরুদ্ধে। ঢাকার সাভারে এক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে এই মেজরের বিরুদ্ধে। রাজিবুল ইসলাম নামের ওই ম্যাজিস্ট্রেটকে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। বিজিবি’র মেজরের নাম রহমত। তিনি বিজিবির ঢাকা সেক্টর সদর দফতরে কর্মরত বলে জানা গেছে।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, রবিবার (১৩ জানুয়ারি) সকালে সাভারের উলাইল এলাকায় আল-মুসলিম কারখানায় এ ঘটনা ঘটে। জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাজিবুল ইসলামের করা অভিযোগে বলা হয়, রবিবার সকালে সাভারের উলাইল এলাকায় বিজিবির একটি দলের সঙ্গে তিনি দায়িত্ব পালন করতে যান। সেখানে থাকা বিজিবির দলের দায়িত্বে মেজর রহমত তাকে আল-মুসলিম পোশাক কারখানার ভেতরে একটি কক্ষে নিয়ে যান।

পরে বিজিবির মেজর তার দলের দুই সদস্যকে ডেকে শ্রমিক অসন্তোষের অবস্থার অবনতি হলে সরাসরি গুলি করার পর ম্যাজিস্ট্রেটকে জানানোর কথা বলেন। এসময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এই বিষয়ের প্রতিবাদ করেন। এ নিয়ে তাদের মধ্যে বাকবিত-া শুরু হলে বিজিবির মেজর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে কিল-ঘুষি মেরে আহত করেন। পরে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা গিয়ে তাকে উদ্ধার করেন।

এব্যাপারে সাভার উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ রাসেল হাসান বলেন, ‘সাভারে পোশাক কারখানায় শ্রমিক অসন্তোষের ঘটনায় সাভার ও আশুলিয়া এলাকায় বিজিবি মোতায়েন করা হয়। বিজিবি’র সঙ্গে একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটও দায়িত্ব পালন করছিলেন। সকালে উলাইল এলাকায় দায়িত্ব পালনের সময় তাদের মধ্যে অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটে। বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ অবগত রয়েছে। এ বিষয়ে জেলা ম্যাজিস্ট্রেটও অবগত রয়েছেন।’

বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আমজাদুল হক বলেন, ‘রাজিবুল ইসলাম নামের এক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাদের হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে চলে গেছেন।’ তবে এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিজিবি’র গণসংযোগ কর্মকর্তা মোহসিন রেজা বলেন, ‘বিষয়টি আমার জানা নেই।’

এদিক্ব এ ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন। সংগঠনটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এ ঘটনায় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। তাদের প্রতিবেদন পেলে বিষয়টি সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে।