১৬, জানুয়ারী, ২০১৯, বুধবার | | ৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০

ধর্ষকদের শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ

আপডেট: জানুয়ারি ২, ২০১৯

ধর্ষকদের শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে নৌকায় ভোট না দেয়ায় গৃহবধূকে ধর্ষণের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও অবিলম্বে ধর্ষকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ নারী মুক্তি কেন্দ্র।

বুধবার (২ ডিসেম্বর) বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এ বিক্ষোভ সমাবেশ করে তারা।

বিক্ষোভ সমাবেশে উপস্থিত হয়ে বাসদ (মার্কসবাদী) থেকে ঢাকা-১৬ আসনের প্রার্থী নাঈমা খালেদ মনিকা বলেন, ‘৩০ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীরা নোয়াখালী সুবর্ণচরে চার সন্তানের জননী এক গৃহবধুর উপর নৌকায় ভোট না দেয়ার অপরাধে স্বামী সন্তানদের সামনে গণধর্ষণ করেছে। নির্বিচার আহত করেছে তার স্বামীকে। একাত্তরে পাকিস্তানি শাসকদের দোসর রাজাকাররা এদেশের নারীদের সম্ভ্রমহানি করেছিল। আর আজ স্বাধীন দেশে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের একমাত্র দাবিদার শক্তির কাঁধে পাকিস্তানি হানাদারের প্রেতাত্মা ভর করেছে। এই অপশক্তিকে চিনে নিতে হবে, এদের হাত থেকে আজ নিস্তার পেতে হলে সর্বস্তরের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।’

সরকার মুক্তিযুদ্ধকে পুঁজি করে দেশে শোষণ চালাচ্ছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘১৯৭১ সালে ত্রিশ লক্ষ শহীদের পাশাপাশি ২ লক্ষ নারীর সম্ভ্রমের বিনিময়ে দেশ স্বাধীন হয়েছে। সে যুদ্ধে এ দেশের গরীব মেহনতী মানুষের ভূমিকা প্রধান হলেও আওয়ামী লীগ সরকার মুক্তিযোদ্ধা কে পুঁজি করে দেশে শাসন-শোষণ চালাচ্ছে। এবারের নির্বাচনেও মানুষ দিনের আলোয় প্রত্যক্ষ করল নির্লজ্জভাবে সরকার দলীয় জোটের প্রহসনের নির্বাচন। এই নির্বাচনে মানুষ যেমন তার সমস্ত অধিকার হারিয়েছে, তেমনি হারিয়েছে সম্মান, মর্যাদা ও সম্ভ্রম।’

বাংলাদেশ নারী মুক্তি কেন্দ্রীয় সভাপতি সীমা দত্ত বলেন, ‘একটা দেশে নারী ও শিশুর অবস্থান নির্ণয় করে সে দেশে মানুষ কেমন আছে। নোয়াখালী সুবর্ণচরে একজন মা যেভাবে গণধর্ষণ ও নির্যাতনের শিকার হল, তা কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। গত দশ বছরে এই সরকার নারীর নিরাপত্তা দিতে পারেনি। দর্শকদের আশ্রয় প্রশ্রয় দিয়ে সরকারের ভিত্তিকে শক্ত করার চেষ্টা করেছে সে (শেখ হাসিনা)। তনু হত্যা, বর্ষবরণে নারী নিপীড়নসহ সর্বশেষ সুবর্ণচরে চার সন্তানের জননীকে গণধর্ষণের ঘটনায় সরকার কোনো উদ্যোগ নেবে না। তাই, সাধারণ মানুষকে আজ এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।’

বিক্ষোভ সমাবেশে বাংলাদেশ নারী মুক্তি কেন্দ্রের অর্থ সম্পাদক তাসলিমা আক্তার বিউটি সহ সংগঠনের অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।