১৬, জানুয়ারী, ২০১৯, বুধবার | | ৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০

পাকিস্তানকে ‘অত্যাধুনিক যুদ্ধজাহাজ’ দেবে চীন

আপডেট: জানুয়ারি ২, ২০১৯

পাকিস্তানকে ‘অত্যাধুনিক যুদ্ধজাহাজ’ দেবে চীন

পাকিস্তানের জন্য একটি ‘অত্যাধুনিক যুদ্ধজাহাজ’ বানানোর কাজ শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে চীনের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম। নির্মাণাধীন এ জাহাজটি চীনা নৌবাহিনীর অত্যাধুনিক গাইডেড মিসাইল ফ্রিগেটের নতুন সংস্করণ হতে যাচ্ছে।

ভারত মহসাগরে ‘ক্ষমতার ভারসাম্য’ নিশ্চিত করার লক্ষে বেইজিং এ অত্যাধুনিক যুদ্ধজাহাজটি তৈরি করে দিচ্ছে বলে চায়না ডেইলির প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে এনডিটিভি এসব তথ্য জানায়।

আধুনিক সমরাস্ত্র সজ্জিত ও সনাক্তকরণ ব্যবস্থাসম্পন্ন নতুন এ যুদ্ধজাহাজ বিমান, সাবমেরিন ও অন্যান্য জাহাজের আক্রমণ প্রতিরোধে সক্ষম বলে জানিয়েছে চীনের রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত জাহাজনির্মাতা প্রতিষ্ঠান সিএসএসসি।

পাকিস্তান ও চিনের মধ্যে স্বাক্ষরিত দ্বিপক্ষীয় অস্ত্র চুক্তি অনুযায়ী ইসলামাবাদ এ ধরনের চারটি যুদ্ধজাহাজ চেয়েছিল, এটি প্রথমটি।

নতুন এ যুদ্ধজাহাজটি ০৫৪এপি শ্রেণির বলে পাকিস্তানের নৌবাহিনীর বরাত দিয়ে জানানো হয়।

চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মির (পিএলএ) ০৫৪এ শ্রেণির জাহাজের ওপর ভিত্তি করেই নতুন এ জাহাজটি বানানো হচ্ছে।

তৈরি শেষ হলে এটি হবে প্রযুক্তিগত দিক দিয়ে পাকিস্তান নৌবাহিনীর জন্য একটি বড় সংযোজন, যা ভবিষ্যতের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় দেশটির সক্ষমতা বৃদ্ধি, শান্তি ও স্থিতিশীলতা এবং ভারত মহাসাগরে ক্ষমতার ভারসাম্য রক্ষায় ভূমিকা রাখবে। এমনটাই বলছে চীনের রাষ্ট্রীয় এ গণমাধ্যম।

চীন এরই মধ্যে আফ্রিকার জিবুতিতে একটি সামরিক ঘাঁটি বানিয়েছে; ঋণের বিনিময়ে শ্রীলঙ্কার কাছ থেকে ৯৯ বছরের জন্য ইজারা নিয়েছে কৌশলগতভাবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ হাম্বানটোটা সমুদ্র বন্দর।

চীন-পাকিস্তানের অর্থনৈতিক করিডোরটি পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের ভেতর দিয়ে যাওয়ায় ভারত শুরু থেকেই এ প্রকল্পের বিরোধিতা করে আসছে। বিরোধ করলেও চীন তার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।