বিয়ের প্রস্তাব রাজি না হওয়ায় যৌনকর্মীকে পাঁচ টুকরো

ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে এক যৌনকর্মীকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন ৩২ বছরের এক যুবক। বিয়ে করতে রাজি না হওয়ায় ওই যৌনকর্মীকে খুন করে দেহ পাঁচ টুকরো করেছে সেই যুবক। নয়াদিল্লি পুলিশের বিশেষ শাখা ঘাতক ওই যুবককে গ্রেফতার করেছে বলে দেশটির একটি গণমাধ্যম জানিয়েছে।

দিল্লি পুলিশ বলছে, অভিযুক্ত ঘাতকের নাম মোহাম্মদ আইয়ুব। তিনি বিবাহিত ও তিন সন্তানের বাবা। লতা ওরফে সালমা নামে এক যৌনকর্মীকে খুন করেছেন তিনি। দেহ ব্যবসার কাজ ছেড়ে বিয়ে করতে বলেছিলেন আইয়ুব। লতা রাজি না হওয়ায় তাকে খুন করেন এই যুবক।

২০০৮ সাল থেকে লতার সঙ্গে সম্পর্ক ছিল আইয়ুবের। লতার কাছেই বারবার যেতেন তিনি। এই দীর্ঘ সময়ে একাধিকবার তাকে বিয়ের প্রস্তাবও দিয়েছেন তিনি। কিন্তু বারবার সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দেয়ায় দিল্লির বাওয়ানা ক্যানালের কাছে লতাকে নিয়ে গিয়ে খুন করেন অভিযুক্ত যুবক।

প্রথমে গলা কেটে হত্যা করেন তাকে। পর তার মরদেহ যেন চেনা না যায় সেজন্য ৫টি টুকরো করে বিভিন্ন স্থানে ফেলে দেন তিনি।কৈলাশনাথ কাটজু মার্গ পুলিশ স্টেশনে ক্যানাল থেকে দেহ উদ্ধারের পর মামলা দায়ের করা হয়। এর পর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দিল্লির তুর্কমান গেট থেকে ঘাতক আইয়ুবকে গত শুক্রবার গ্রেফতার করে পুলিশ।

বার্তাবাজার/এম.কে

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
এই বিভাগের আরো খবর