হাসপাতালে অনুপস্থিত থাকায় গণপিটুনিতে চিকিৎসকের মৃত্যু

চিকিৎসক হাসপাতালে অনুপস্থিত থাকায় রোগীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে চা বাগানের শ্রমিকদের পিটুনিতে ওই চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের আসামের জোড়হাট জেলায়। খবর এনডিটিভির।

পুলিশ জানিয়েছে, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সোমরা মাঝি নামে এক শ্রমিকের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে চা বাগানের চিকিৎসক দেবেন দত্তকে (৭৩) শ্রমিকরা ব্যাপক মারধর করে। এতে তার মৃত্যু হয়।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, শনিবার (৩১ আগস্ট) সোমরাকে হাসপাতালে ভর্তির পর হাসপাতালে চিকিৎসক অনুপস্থিত থাকার কারণে এবং অস্থায়ী ওই শ্রমিকের মৃত্যুর জন্য দেবেন দত্তকে দোষারোপ করা হয়েছে। কারণ তিনি চা বাগানের একজন আবাসিক চিকিৎসক ছিলেন।

জোড়াহাট মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ভিতরে চিকিৎসককে মারধর করার একটি ভিডিও ফুটেজ এরই মধ্যে প্রকাশ হয়েছে।

জানা যায়, শনিবার দুপুরে শ্রমিক সোমরা মাঝিকে তার আত্মীয় স্বজনরা হাসপাতালে নিয়ে যান।

কিন্তু সেই সময় ডা. দেবেন দত্ত হাসপাতালে উপস্থিত ছিলেন না এবং ফার্মাসিস্টও ছুটিতে ছিলেন। কর্তব্যরত নার্স স্যালাইনের ব্যবস্থা করলেও ওই শ্রমিক মারা যান বলে জানান সংশ্লিষ্ট হাসপাতালের কর্তৃপক্ষ।

তারা বলেন, দেবেন দত্ত তিনটার দিকে এলে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা তাকে মারধর করে এবং হাসপাতালের একটি কক্ষে প্রবীণ চিকিৎসককে আটকে রেখে দেয়।

ডা. দেবেন দত্ত অনেক আগেই অবসর নিয়েছিলেন এবং ওই চা বাগানে এক্সটেনশনে কাজ করছিলেন। জোড়হাটের প্রবীণ চিকিৎসক হিসেবেই মানুষের কাছে পরিচিত ছিলেন তিনি।

পুলিশ জানিয়েছে, এ ঘটনা তদন্ত চলছে।

বার্তাবাজার/এএস

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
এই বিভাগের আরো খবর