নতুন করে বেড়েছে চিনি-পিয়াজের দাম

স্বস্তি নেই রাজধানীর কাঁচাবাজারে। একদিন কমলে পরের দিন আবার বাড়ছে। এ ছাড়া সবজির দাম যেন ৫০ থেকে ৬০ টাকার মধ্যে একেবারে স্থায়ী হয়ে গেছে। আর কিছু সবজির দাম ১০০ টাকার উপরে বিক্রি হচ্ছে। এর পাশাপাশি বাজারে এখনও উচ্চমূল্যে বিক্রি হচ্ছে দেশি ও আমদানি করা পিয়াজ। এদিকে, আরো একদফা বেড়েছে চিনির দাম। বাজারে প্রতিকেজি খোলা চিনি বিক্রি হচ্ছে ৫৮-৬০ টাকায়, যা গত সপ্তাহে ছিল ৫৫-৫৮ টাকা। একমাস আগে খুচরা পর্যায়ে চিনি বিক্রি হতো ৫২-৫৪ টাকা কেজি। তবে কমতে শুরু করেছে ইলিশ, ডিম ও আদা-রসুনের দাম।

রাজধানীর কাওরান বাজার সহ বিভিন্ন বাজার ঘুরে এ চিত্র পাওয়া গেছে। বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বাজারে সব ধরনের সবজি বিক্রি হচ্ছে চড়া দামেই। শীতের আগাম সবজি শিমের দাম সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে কমেছে ৬০ টাকা। তবে সবজিটি এখনো নিম্ন আয়ের মানুষের নাগালের বাইরে রয়েছে। কারণ বাজার ও মানভেদে শিমের কেজি বিক্রি হচ্ছে ১২০-১৪০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ১৮০-২০০ টাকা কেজি। ব্যবসায়ীরা বলছেন, যে কোনো সবজি বাজারে নতুন আসলে দাম একটু বাড়তিই থাকে। শীত আসতে এখনো বেশ বাকি আছে। তবে শীতের আগাম সবজি হিসেবে শিম ইতিমধ্যে বাজারে চলে এসেছে। আগাম বাজারে আসায় এ সবজিটির দাম চড়া। মাস দুয়েক পর শিমের দামে অনেক কমে যাবে।

এদিকে, পাকা টমেটোর কেজি আগের সপ্তাহের মতো বিক্রি হচ্ছে ১২০-১৪০ টাকায়। গাজরের দামও অপরিবর্তিত রয়েছে। গাজর বিক্রি হচ্ছে ৮০-১০০ টাকা কেজি। তবে সপ্তাহের ব্যবধানে দাম বেড়েছে করলা, বরবটি, বেগুনের। করলার কেজি বিক্রি হচ্ছে ৮০-৯০ টাকায়, যা গত সপ্তাহে ছিল ৫০-৬০ টাকা কেজি। গত সপ্তাহে ৬০-৭০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া বরবটির দাম বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৮০-৯০ টাকায়। বেগুনের দাম বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৬০-৭০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ৪০-৫০ টাকা। চড়া দামে বিক্রি হওয়া সবজির তালিকায় রয়েছে- পটল, ঝিঙা, ধুন্দল, চিচিংগা, কাকরোল, ঢেঁড়স, লাউ। চিচিংগা, ঝিঙা, ধুনদল বিক্রি হচ্ছে ৪০- ৫০ টাকা কেজি। যা গত সপ্তাহে বিক্রি হয় ৬০-৭০ টাকা কেজি। অর্থাৎ দাম চড়া হলেও সপ্তাহের ব্যবধানে এ সবজিগুলোর দাম কমেছে।

সপ্তাহের ব্যবধানে দাম বাড়ার তালিকায় থাকা পটল বিক্রি হচ্ছে ৫০-৬০ টাকা কেজি, যা গত সপ্তাহে ছিল ৪০-৫০ টাকা। কাকরোল বিক্রি হচ্ছে ৫০-৬০ টাকা কেজি, যা গত সপ্তাহে ছিল ৪০-৫০ টাকা কেজি। লাউ বিক্রি হচ্ছে ৬০-৭০ টাকা পিস। এদিকে ২৫০ গ্রাম কাঁচামরিচ বিক্রি হচ্ছে ২০-২৫ টাকা। দেশি পিয়াজের বিক্রি হচ্ছে ৪৫-৫০ টাকা।

এদিকে, চিনির দাম বাড়ার চিত্র সরকারি সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) দৈনিক বাজার মূল্য তালিকায়ও দেখা গেছে। সেখানে মাসের ব্যবধানে চিনির দাম বেড়েছে ৭.২৭ শতাংশ। শুধু খুচরা পর্যায়ে নয়, পাইকারিতেও বেড়েছে চিনির দাম। পাইকারি পর্যায়ে প্রতি বস্তা (৫০ কেজি) চিনি বিক্রি হয়েছে ২৭০০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ২৫০০ টাকা।

বার্তা বাজার/এস.আর

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
এই বিভাগের আরো খবর