১৫, ডিসেম্বর, ২০১৮, শনিবার | | ৬ রবিউস সানি ১৪৪০

ওয়ালটন এক অসাধারণ সফলতার উদাহরণ

আপডেট: ডিসেম্বর ৮, ২০১৮

ওয়ালটন এক অসাধারণ সফলতার উদাহরণ

বাংলাদেশে তৈরি প্রথম ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেছেন, ওয়ালটন বাংলাদেশের গর্ব। বিশ্বের অনেক দেশে ওয়ালটন পৌঁছে গেছে। ওয়ালটন বাংলাদেশের জন্য অসাধারণ এক সাফল্যের উদাহরণ।

গ্রামীণফোনের সঙ্গে এই প্রথম ফ্ল্যাগশিপ (সেরা ও গুরুত্বপূর্ণ পণ্য) সেট নিয়ে বড় ধরনের অফার ঘোষণা করল ওয়ালটন। গ্রামীণফোন এবং ওয়ালটনের যৌথ উদ্যোগে নেওয়া হচ্ছে ফোনটির প্রি-অর্ডার। এই অফারের আওতায় গ্রামীণফোণের গ্রাহকরা এই সেট ব্যবহার করলে বিনামূল্যে ৬ জিবি ইন্টারনেট ডাটা ফ্রি পাবেন। থাকছে আরো কিছু সুবিধা। আর ওয়ালটনের পক্ষ থেকে ক্রেতাদের জন্য ৩ হাজার টাকার গিফট ভাউচারসহ আরো কিছু সুবিধা মিলবে।

গ্রামীণফোনের সঙ্গে যৌথ ঘোষণা উপলক্ষে ওয়ালটন প্রিমো এক্স-ফাইভ নামের ওই সেটের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠান হয়ে গেল গত বুধবার। রাজধানীতে ওয়ালটনের কর্পোরেট অফিসের ওই অনুষ্ঠানে গ্রামীণফোনের ডেপুটি সিইও ইয়াসির আজমান বলেন, দেশের সবখানেই ওয়ালটনের উপস্থিতি দেখেছি। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কারখানা দেখার সৌভাগ্য হয়েছে। বিশেষ করে গত বছর চীনে কয়েকটি স্মার্টফোন এবং ইলেকট্রনিক্স পণ্য তৈরির কারখানা দেখেছি। কিন্তু গত মাসে ওয়ালটন হাই-টেক পার্ক দেখে আমি অভিভূত। কল্পনায়ও ছিল না দেশের ভেতর আইওটি এবং ইলেকট্রনিক্স পণ্যের এত বৃহৎ কারখানা থাকতে পারে।

ওয়ালটনের কারখানা বিদেশি ওইসব কারখানার চেয়ে অনেক বড় এবং আধুনিক। এটা অনেক বড় অনুপ্রেরণার। ওয়ালটন বাংলাদেশের গর্ব। আমরা গর্বিত যে আমাদের দেশের একটি ব্র্যান্ড এত বৃহৎ আকারে উৎপাদনে গেছে। শুধু দেশের মধ্যেই নয় বরং বিশ্বের অনেক দেশে ওয়ালটন পৌঁছে গেছে। এটা বাংলাদেশের জন্য অসাধারণ এক সাফল্যের উদাহরণ।

ওয়ালটনকে ইলেকট্রনিক্স এবং প্রযুক্তিপণ্য বাজারের রোল মেকার বলে অভিহিত করে ইয়াসির আজমান বলেন, ওয়ালটনের সঙ্গে গ্রামীণফোনের এই ব্যবসায়িক পার্টনারশিপ অব্যাহত থাকবে। স্মার্টফোন বাজারে ওয়ালটনের তৈরি ‘প্রিমো এক্সফাইভ’ হ্যান্ডসেটকে ‘এক্স ফ্যাক্টর’বলে অভিহিত করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে গ্রামীণফেনের হেড অব ডিভাইস সরদার শওকত আলী বলেন, দিনটি বাংলাদেশের জন্য ঐতিহাসিক। কারণ এ ধরনের ফ্ল্যাগশিপ সেট সাধারনত বিদেশি কোম্পানিরা তৈরি করে। কিন্তু ওয়ালটন বাংলাদেশের ব্র্যান্ড। তারা এত উন্নতমানের একটি ফোন নিজেরা তৈরি করেছে। এর ডিজাইন থেকে শুরু করে সব কাজ নিজেরা করেছে এবং বিজয়ের মাসে বাজারে আনছে।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- ওয়ালটন গ্রুপের পরিচালক এসএম আশরাফুল আলম, এসএম মাহবুবুল আলম এবং তাহমিনা আফরোজ তান্না, ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এসএম মঞ্জুরুল আলম এবং ওয়ালটন মোবাইল ফোন বিভাগের প্রধান এসএম রেজওয়ান আলম।

৬ জিবি র‌্যামের ওয়ালটন প্রিমো এক্সফাইভ স্মার্টফোনটির দাম রাখা হয়েছে মাত্র ২৪ হাজার ৯৯৯ টাকা। দেশের সব ওয়ালটন প্লাজা ও ব্র্যান্ড আউটলেট এবং গ্রামীণফোনের অনলাইন শপ, ওয়াও বক্স এবং মাই জিপি থেকে মাত্র ২ হাজার ৫০০ টাকায় ফোনটির আগাম ফরমাশ দেয়া যাবে। প্রি-অর্ডার দেয়া ক্রেতারা স্মার্টফোনের সঙ্গে পাবেন ৩ হাজার টাকার গিফট ভাউচার। যা দিয়ে ওয়ালটন বিক্রয়কেন্দ্র থেকে পছন্দের পণ্য কিনতে পারবেন। নগদ, ইএমআই এবং কিস্তিতে ফোন কেনার ক্ষেত্রেও এই অফার প্রযোজ্য।

গ্রামীণফোন ব্যবহারকারীরা ওয়ালটন প্রিমো এক্সফাইভ স্মার্টফোনে তাদের সিমকার্ড ইনসার্ট করার সঙ্গে সঙ্গে ৬ জিবি ইন্টারনেট ফ্রি পাবেন। এ ছাড়া ফোন কেনার পর থেকে পরবর্তী ৩ মাসে ৩০ বার পর্যন্ত মাত্র ৯৯ টাকায় ৪ জিবি করে ইন্টারনেট ডাটা নিতে পারবেন।

এই ফোনে ৩০ দিনের ইনস্ট্যান্ট রিপ্লেসমেন্ট ছাড়াও যারা প্রি-অর্ডাকারী ক্রেতারা পাবেন দেড় বছরের বিশেষ ওয়ারেন্টি। এ সময়ের মধ্যে ফোনটিতে কোনো সমস্যা হলে গ্রাহকের কাছ থেকে ওয়ালটনের প্রতিনিধি গিয়ে ফোনটি নিয়ে আসবেন এবং ক্রুটিমুক্ত করে বিনামূল্যে পৌঁছে দেবেন।