১৪, ডিসেম্বর, ২০১৮, শুক্রবার | | ৫ রবিউস সানি ১৪৪০

দাঁতের ইনফেকশন থেকে হতে পারে কঠিন রোগ

আপডেট: ডিসেম্বর ৮, ২০১৮

দাঁতের ইনফেকশন থেকে হতে পারে কঠিন রোগ

অনিয়ম সময় অতিবাহিত করা স্বাস্থ্যের জন্য খুব ক্ষতিকারক। আমরা যদি একটু নিয়ম করে অল্প কিছু বিষয় মেনে চলি তাহলে হয়তো নিজের স্বাস্থ্য ভালো রাখা সম্ভব।

যেমন ধরুন দাঁতের বিষয়ে অনেক মানুষই খুব একটা সচেতন নন। দাঁতের রোগের নানা পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সম্বন্ধেও জানেন না বেশির ভাগ মানুষ।

এ বিষয়ে চিকিৎসকদের মতামত হচ্ছে, দাঁতের ইনফেকশন কিংবা ব্যথাকে কখনই হেলায়ফেলায় কিংবা হালকাভাবে না নেয়া উচিত নয়। কেননা গবেষণা বলছে- দাঁতে জীবাণুর সংক্রমণ দীর্ঘস্থায়ী হলে তা থেকে হার্ট অ্যাটাক, স্ট্রোক, ডায়বেটিস বা ফুসফুস আক্রান্ত হয়ে জটিল সমস্যা দেখা দিতে পারে।

হার্টে সমস্যা হতে পারে: দাঁতের পেরিওডেন্টাইটিস বা ইনফেকশন এবং হৃদরোগ দু’টোই একে-অপরের সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কিত। এ বিষয়ে বিশেষজ্ঞ ড্যরফার জানান, বিভিন্ন সমীক্ষা থেকে এ তথ্য বেরিয়ে এসেছে।

স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ায়: দাঁতে ইনফেকশন বা পেরিওডেন্টাইটিস রোগ যদি জটিল ও দীর্ঘস্থায়ী হয়, তাহলে তা নিঃসন্দেহে স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়। বেশ স্পষ্টভাবেই এ কথা বলেছেন, জার্মানির দন্তবিষয়ক বিশেষজ্ঞ ও গবেষক ক্রিস্টফ ড্যরফার।

ডায়বেটিস: দাঁতে ইনফেকশন আর ডায়বেটিসের যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে তা ইতোমধ্যে প্রমাণিত। ডায়বেটিস রোগীদের দাঁতের ইনফেকশন হওয়ার ঝুঁকি থাকে একজন সুস্থ মানুষের চেয়ে শতকরা সাড়ে তিন ভাগ বেশি। তেমনি এর উল্টোটাও হয়ে থাকে। তাছাড়া ডায়বেটিস রোগীদের দাঁতের সংক্রমণ হলে তাদের হার্ট অ্যাটাক হওয়ার ঝুঁকিও বেড়ে যায়।

আক্রান্ত হতে পারে ফুসফুস: দাঁতে বাসা বাঁধা জীবাণু নিঃশ্বাসের মধ্য দিয়ে ফুসফুসেকে আক্রান্ত করতে পারে। তবে এটা সাধারণত হয়ে থাকে যাঁরা বেশি সময় ধরে বিছানায় শুয়ে থাকে, তাদের ক্ষেত্রে। বিশেষ করে হাসপাতালের বিছানায় বেশি দিন শুয়ে থাকলে এমনটা হতে পারে।

মুখ: দাঁতের ইনফেকশন বা পেরিওডেন্টাইটিস রোগ দীর্ঘস্থায়ী হলে দাঁতের চোয়ালের হাড়ের ক্ষয় হয় এবং তখন দাঁত নড়তে থাকে। শেষ পর্যন্ত দাঁতটিকে হারাতেও হয়।

জীবাণু ঢোকার রাস্তা: মুখের ভেতর নানা ধরনের ৭০০টি জীবাণুর বাস, যা শরীরের অন্যান্য অঙ্গের তুলনায় অনেক বেশি। এসব জীবাণু ঢোক গেলা এবং নিঃশ্বাস-প্রশ্বাসের মধ্য দিয়ে প্রবেশ করে। তাছাড়া রক্ত চলাচলে মধ্য দিয়েও জীবাণু মুখে ঢুকতে পারে। অর্থাৎ দাঁতে জীবাণু ঢোকার প্রবেশ পথ অনেক। তাই সকলেরই সতর্ক হওয়া প্রয়োজন।

শরীরের অন্যান্য অঙ্গের মতোই দাঁতের যত্নও অত্যন্ত জরুরি। তাই দাঁতকে ভালোভাবে সংরক্ষণ করতে নিয়মিত যত্ন ছাড়াও ডাক্তারি চেকআপ প্রয়োজন। তাছাড়া দাঁতে ইনফেকশন থাকা অবস্থায় কোনো রোগীর চোখ, কান, মস্তিষ্ক বা হার্টের মতো অঙ্গে অপারেশন করা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ।