১৯, অক্টোবর, ২০১৮, শুক্রবার | | ৮ সফর ১৪৪০

সরকার আতঙ্কে ভুগছে: রিজভী

আপডেট: সেপ্টেম্বর ৪, ২০১৮

সরকার আতঙ্কে ভুগছে: রিজভী

দলের নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার ও তাদের হয়রানির অভিযোগ করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, দেশব্যাপী আবারও নতুন করে বিশেষ ক্ষমতা আইনে অথবা নিজেরাই নাশকতার মতো ঘটনা ঘটিয়ে বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের নামে মামলা দিয়ে নির্বিচারে গ্রেফতার করা হচ্ছে। গত কয়েক দিনে চার শতাধিক নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সরকার আতঙ্কে ভুগছে। গুম, খুন, বিচারবহির্ভূত হত্যা, দুর্নীতি-দুঃশাসনের কাদায় আটকে পড়ে এখন বিএনপি নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা ও গ্রেফতারের মাধ্যমে মরণকামড় দিচ্ছে।

মঙ্গলবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এ কথা বলেন।

রিজভী বলেন, দেশের ভোটারদের ধর্মীয় সম্প্রদায়ের ভিত্তিতে ভাগ করে ফায়দা লোটার অভিনব চক্রান্ত শুরু করেছেন আওয়ামী লীগের মন্ত্রী ও নেতারা। আকস্মিকভাবে সাম্প্রদায়িক বিভাজনের আওয়ামী নেতার বক্তব্য অশুভ চক্রান্তের ইঙ্গিতবাহী।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর থেকে মন্দির, গির্জা ও প্যাগোডায় সবচেয়ে বেশি আক্রমণ হয়েছে। তার আমলেই সংখ্যালঘুরা সবচেয়ে বেশি নির্যাতিত ও নিরাপত্তাহীন। তাদের ব্যক্তিগত, সাংগঠনিক ও ধর্মীয় সম্পত্তির ওপরও আওয়ামী লীগ ও যুবলীগ-ছাত্রলীগের লোকেরা হামলা করেছে। আওয়ামী লীগের লোকেরাই তাদের ঘরবাড়ি, জায়গা-জমি দখল করেছে, আগুন দিয়ে মন্দিরসহ তাদের উপাসনালয় জ্বালিয়ে দিয়েছে।

রিজভী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ নেতা ও বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ সাহেব বলেছেন, বিএনপি ক্ষমতায় আসলে এক লাখ মানুষকে হত্যা করা হবে। এ তথ্য কোন পরিসংখ্যান ব্যুরো থেকে সংগ্রহ করেছেন তোফায়েল আহমেদ? এ তথ্যের উৎস কি হাসানুল হক ইনু না সজিব ওয়াজেদ জয়? এক লাখ লোক মারা যাওয়ার আশঙ্কা করছেন কেন তোফায়েল আহমেদ? কোন অপকর্মের কারণে এ আশঙ্কা করছেন? আপনাদের এলাকায় বিএনপি নেতাকর্মী ও সমর্থকরা ঘরবাড়ি ছেড়ে দোকান পাট, গরু-ছাগল বিক্রি করে ঢাকাসহ বিভিন্ন শহরে মানবেতর জীবন-যাপন করছে।’

রিজভী আরও বলেন, ‘বিএনপি তো এর আগে অনেকবার ক্ষমতায় এসেছে, কিন্তু কোথাও তো রক্তক্ষরণের কোনও দৃষ্টান্ত নেই। আপনাদের কোন অন্যায়-অপরাধের কারণে এত ভয় পাচ্ছেন? আপনাদের এলাকায় বিএনপির নেতাকর্মী ও সমর্থকরা ঘরবাড়ি ছেড়ে দোকানপাট, গরু ছাগল বিক্রি করে ঢাকাসহ বিভিন্ন শহরে মানবেতর জীবনযাপন করছেন।’

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভূইয়া, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ প্রমুখ।