২০, নভেম্বর, ২০১৮, মঙ্গলবার | | ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিনষ্ট করল কারা প্রধানমন্ত্রী জানতে চেয়েছেন

আপডেট: নভেম্বর ১১, ২০১৮

শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিনষ্ট করল কারা প্রধানমন্ত্রী জানতে চেয়েছেন

তফসিল পেছাবে কিনা এটা সম্পূর্ণই নির্বাচন কমিশনের ব্যাপার। তবে আওয়ামী লীগ মনে করে এই তফসিল যথাযথ। তাই যথাসময়ে নির্বাচন চায় আওয়ামী লীগ বলে জানিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শনিবার সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সম্পাদকমণ্ডলীর সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

কাদের বলেন, বিকেলে যে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে এ জন্য প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন দুই দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দিতে। এই ঘটনার সাথে যারাই জড়িত তাদেরকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনা হবে। এই শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিনষ্ট করল কারা প্রধানমন্ত্রী জানতে চেয়েছেন।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট দাবি করছে তফসিল পেছানোর জন্য এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, তফসিল পেছানোর ব্যাপারে আওয়ামী লীগের কিছুই করার নেই। এ বিষয়ে তারা নির্বাচন কমিশনের সাথে কথা বলতে পারে। আওয়ামী লীগ চায় যথা সময়ই নির্বাচন। আওয়ামী লীগ নিশ্চিত সকল দলই নির্বাচনে অংশ নেবে। তবে নির্বাচনকে বানচাল করার জন্য কেউ যদি সহিংসতা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে সমুচিত জবাব দেয়া হবে।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, তফসিল ঘোষণা করার পর তারা যদি কোনো কর্মসূচি নেয়, এটা আচরণবিধি লঙ্ঘন আর এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবে নির্বাচন কমিশন।

সকল দলের নির্বাচনে অংশ নেয়ার বিষয়ে কোনো আশঙ্কা আছে কি না এর জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা আশা করি সকল দলই এই নির্বাচনে অংশ নেবে। অংশ না নেয়ার কোনো আশঙ্কা নেই।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট কে উদ্দেশ্য করে সেতুমন্ত্রী বলেন, শেষ মুহূর্তে তারা দরকষাকষি করে দেখছে কিছু পাওয়া যায় কি না। মূলত কিছু পাওয়ার জন্য তারা দরকষাকষি করছে। শান্তিপূর্ণ নির্বাচন করার জন্য একটি গ্রহণযোগ্য তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান, জাহাঙ্গীর কবির নানক, মাহবুবউল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম, বিএম মোজাম্মেল হক, নওফেল, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, দপ্তর সম্পাদক আব্দুস সোবহান গোলাপ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সবুর, সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আফজাল হোসেন, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইকবাল হোসেন অপু প্রমুখ।