২১, নভেম্বর, ২০১৮, বুধবার | | ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

ঝিনাইদহে ৮ দিনে গ্রেপ্তার ৩৮৫ জন

আপডেট: নভেম্বর ১০, ২০১৮

ঝিনাইদহে ৮ দিনে গ্রেপ্তার ৩৮৫ জন

ঝিনাইদহ জুড়ে পুলিশের গ্রেপ্তার অভিযান অব্যাহত রয়েছে। গত ৮ দিনে ঝিনাইদহের ৬ উপজেলা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৩৮৫ জনকে। ঝিনাইদহ জেলা ডিএসবির মুঠোফোনের ক্ষুদে বার্তা থেকে সাংবাদিকদের এই গ্রেপ্তারের তথ্য জানানো হয়েছে।

দায়িত্বপ্রাপ্ত ডিএসবির এসআই কামরুজ্জামান ক্ষুদে বার্তায় জানিয়েছেন, জেলাব্যাপী সন্ত্রাস, নাশকতা, জঙ্গি ও মাদকবিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে গত ১ নভেম্বর গ্রেপ্তার করা হয় ৫৪ জনকে। ওই দিন ৮টি বোমা, একটি ওয়ান সুটারগান ও ২ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। ২ নভেম্বর ৪৬ জনকে গ্রেপ্তারসহ ১০টি বোমা প্রায় দেড় কেজি গাঁজা ও ১১০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। ৪ নম্বের ৪৫ জনকে গ্রেপ্তার ১০টি বোমা ও ৫৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

৫ নভেম্বর ৫৩ জনকে গ্রেপ্তার ১০টি বোমা ও ৯টি ককটেল উদ্ধার করা হয়। ৬ নভেম্বর ৪৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। ৭ নভেম্বর ৫৩ জনকে গ্রেপ্তার ও ১০৮ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। ৮ নভেম্বর ৪৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। শুক্রবার (৯ নভেম্বর) সারা জেলা থেকে ৪৩ জনকে গ্রেপ্তারসহ ৮টি ককটেল উদ্ধার করা হয়।

এদিকে আইন-শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর ভাষ্যমতে, নাশকতা, জঙ্গি, সন্ত্রাস, মাদক ও অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে এই অভিযান চালানো হলেও বেশির ভাগ ক্ষেত্রে বিএনপি জামায়াতের কর্মী, সমর্থক ও ভোটারদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে বলে দল দুইটির পালিয়ে থাকা নেতারা অভিযোগ করেছেন। বিরোধী নেতাদের অভিযোগ এ লক্ষ্যে ডিএসবি থেকে গ্রামে গ্রামে তালিকা করা হয়েছে।

সরকারি দলের নেতা ও দল সমর্থিত ইউপি চেয়ারম্যানরাও তালিকা দিচ্ছে পুলিশকে। সেই তালিকা নিয়ে পুলিশ ছুটছে গ্রাম থেকে গ্রামান্তরে। তবে পুলিশ বরাবরই এই অভিযোগ অস্বীকার করে সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছে তাদের অভিযান নাশকতা, সন্ত্রাস, জঙ্গি ও অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারের জন্য। কাউকে হয়রানি করার জন্য নয়।