সারিয়াকান্দিতে মধ্যরাতে গোয়ালঘরে আগুন

বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে মধ্যরাতে গোয়ালঘরে আগুন লেগে গরু ছাগল হাঁস মুরগী আগুনে পুড়ে দগ্ধ। আগুন নেভাতে গিয়ে তিন জন আহত হয়েছেন। আহতরা সবাই স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার চন্দনবাইশা ইউনিয়নের ঘুঘুমারী মধ্যপাড়া গ্রামে।
স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গত রবিবারে (২ অক্টোবর)
ঘুঘুমারী গ্রামের মধ্যপাড়ার আজিজার রহমানের ছেলে নুর ইসলাম প্রতিদিনের ন্যায় সাংসারিক কাজকর্ম সেরে রাতে তার গোয়ালঘরে গরু ছাগলকে মশা থেকে সুরক্ষা রাখতে মশার কয়েল জালিয়ে রেখে রাত ১১ টার দিকে শয়নঘরে ঘুমিয়ে পড়েন। রাত আনুমানিক আড়াই টার দিকে ঘুম থেকে জেগে দেখতে পান গোয়ালঘরে আগুন জ্বলছে।
এ-সময় তাদের ডাক, চিৎকারে প্রতিবেশীরাও এগিয়ে এসে পানি ঢেলে আগুন নেভাতে নেভাতে চারটি গরু, পাঁচটি ছাগল, দশটি মুরগী, বারটি হাঁস আগুনে দগ্ধ হয় এবং দুইটি ছাগল ঘটনার সময়ই আগুনে পুড়ে মারা যায়। আগুন নেভাতে গিয়ে ঝলমলি বেগম(৬৫), নুর ইসলাম(৪৫) এবং জাকিউল ইসলাম নামের এক এসএসসি পরিক্ষার্থী আগুনে দগ্ধ হয়েছেন।
এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় প্রায় তিন লক্ষাধীক টাকার ক্ষতিসাধন হয়েছে বলে দাবি করেছেন বাড়ীর মালিক নুর ইসলাম। তার এতো বড় ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সরকারের সহযোগিতা কামনা করেছেন।
এ বিষয়ে চন্দনবাইশা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মাহমুদুন নবী হিরো বলেন, ঘুঘুমারী মধ্যপাড়া গ্রামে নুর ইসলামের বাড়ীতে আগুন লাগার খবর পেয়ে ইউপি সদস্যদের সাথে নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি।তার অনেক ক্ষতি হয়েছে। সাধ্যমতো চেষ্টা করবো তাকে সহযোগিতা করার জন্য।
চন্দনবাইশা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মোঃ দুরুল হোদা বলেন, খবর পেয়ে এসআই হাফিজুর রহমান হাফিজ এবং ডিএসবি এসআই আমজাদ হোসেনকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে।
মিনহাজুল/বার্তাবাজার/এইচ.এম.
বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
এই বিভাগের আরো খবর