খাদ্য সংকটে মানবেতর দিন কাটাচ্ছে শ্রীলঙ্কার শিশুরা

শ্রীলঙ্কায় খাদ্য সংকট প্রকট আকার ধারণ করেছে। অনাহারে অর্ধাহারে দিন কাটাচ্ছে দেশটির শিশু থেকে শুরু করে বৃদ্ধারাও। কারণ দ্রব্যমূল্যের দাম তাদের নাগালের বাইরে।

ধোঁয়া ওঠা ভাত, ডাল আর সবজি; এই ঘ্রাণ প্রথমে আপনাকে মনোমুগ্ধকর অনুভূতি দেবে। তবে সেই ধোঁয়ার কুণ্ডলী নিমিষেই মিলে যাবে বেদনায়, কষ্টের আখ্যান আপনাকে কুঁকড়ে খাবে। কারণ, এখন যে মোটেও শান্তি নেই শ্রীলঙ্কায়। এই ভাত, ডাল ও সবজি খাওয়ার জন্য যারা অপেক্ষা করছেন, তাদের ঘরে এখন ভাত নেই, খাবার নেই। আছে জ্বালানি তেলের তীব্র সঙ্কট।

খাবার নিতে আসা চার সন্তানের জননী চন্দ্রিকা মানেল বলেন, ‘আমরা এখানে এসেছি, কারণ আমরা ক্ষুধার্ত।’ শাক সবজির দামও চলে গেছে হাতের নাগালের বাইরে, বাচ্চাদের খাবারের ঘাটতিও সঙ্কট। তার শিশুদের কাটছে ভয়ঙ্কর দিন। কমিউনিটি রান্নাঘরে আসা মানেল জানালেন তার আরও দুঃখের কথা।

তিনি বলেন, ‘জীবনযাপন খরচ অনেক বেড়ে গেছে, বেঁচে থাকার জন্য আমাদের ধারদেনা করতে হচ্ছে।’

কমিউনিটি রান্নাঘরের উদ্যোক্তা প্যাস্টর মোসেস আকাশ বলেন, ‘আমাদের এখানে অনেক মানুষ আসছেন, যারা গেল চারমাসে এক প্লেট জায়গায় দুই প্লেট ভাত নিতে পারেননি।’

শুধু জুন মাসে শ্রীলঙ্কায় খাদ্য পণ্যের দাম বেড়েছে ৮০ শতাংশ। তাই অধিকাংশ শিশুরাই পাচ্ছে না পুষ্টিসম্পন্ন খাবার।

শাহনা নামের এক অন্তঃসত্তা নারী, যার আরও তিন সন্তান আছে, তিনি জানালেন, ‘আমার শিশুরা খুব করুণ সময় পার করছে, তাদের ভোগান্তির কোন অন্ত নেই। আমি তাদের জন্য না কিনতে পারছি এক প্যাকেট কিস্কুট, না কিনতে পারছি দুধ।’

অনেকের মতো শাহনাও মনে করেন এই দুরবস্থার জন্য দায়ী তার দেশের নেতারা। তিনি বলেন, ‘আমাদের নেতারা বিলাসী জীবনযাপন করেন। তাদের শিশুরাও আরাম আয়েশে থাকে, তবে আমাদের শিশুরা এমন ভুগবে কেন?’ সূত্র: বিবিসি

বার্তাবাজার/এম আই

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
এই বিভাগের আরো খবর