প্রেসক্লাবে নিজের গায়ে আগুন ধরিয়ে দিলেন ছাত্রলীগ নেতা

জাতীয় প্রেসক্লাবে কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি কাজী আনিস নিজের গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। এ সময় তার গায়ের বেশ কিছু অংশ পুড়ে যায়।

সোমবার (৪ জুলাই) দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মওদুদ হাওলাদার গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তাকে উদ্ধারকারী একজন গণমাধ্যমকর্মী জানান, বিকাল ৫টার দিকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে থেকে পুলিশের সহযোগিতায় দ্রুত তাকে উদ্ধার করে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নেওয়া হয়।

এই প্রসঙ্গে কাজী আনিসের ঘনিষ্ঠজন মোহাম্মদ আলী জানান, কাজী আনিস একজন ব্যবসায়ী। পাওনা টাকা না পেয়ে তিনি গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। এর দুই মাস আগেও তিনি পাওনা টাকার দাবিতে প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেছিলেন। এরপর বিভিন্ন জায়গায় সহায়তার জন্য গেলেও সহায়তা না পেয়ে আজ দুপুরের দিকে তিনি এ ঘটনা ঘটান।

তিনি আরও জানান, কাজী আনিস কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার পান্টি গ্রামের বাসিন্দা। তিনি ঠিকাদারি ব্যবসা করেন। মোহাম্মদ আলী আরও জানান, আনিস জানিয়েছে, সে হেনোলাক্স কোম্পানির কাছে ১ কোটি ২৬ লাখ টাকা পাবে। ওই কোম্পানি পাওনা টাকা দিচ্ছে না।

এ নিয়ে এর আগেও মানববন্ধন করেছে, কিন্তু কোনও লাভ হয়নি। তাই আজ গায়ে আগুন দিয়েছে।

ঢামেক পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. বাচ্চু মিয়া চিকিৎসকের বরাত দিয়ে জানান, তার মুখমণ্ডলসহ শরীরের বেশির ভাগ অংশ দগ্ধ হয়েছে। তার চিকিৎসা চলছে।

ওসি বলেন, ‘ওই যুবক নিজের গায়ে আগুন ধরিয়ে দিয়েছেন। তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। কী কারণে তিনি গায়ে আগুন ধরিয়েছেন তা আমরা খতিয়ে দেখছি।’

বার্তাবাজার/এম.এম 

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
এই বিভাগের আরো খবর